চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১ আগস্ট, ২০১৯ | ১:২১ পূর্বাহ্ণ

যে গাছগুলো দূর করবে মশা

মশার প্রকোপ এ বছর গত বছরগুলোর তুলনায় অনেক বেশি। বর্ষাকালে ডেঙ্গু জ্বরের বাহক এসিড মশার জন্ম হয় সব থেকে বেশি। ঘরবাড়িতে পরিষ্কার পানিতেই এই মশায় জন্ম। বিশেষ করে বাসায় রাখা শখের গাছ থেকেই বিপদ আসে। অনেকে পছন্দের গাছ ফেলেও দেন। তবে কিছু গাছ আছে যা মশা জন্ম দেয়া তো দূরের কথা জায়গায় তা বাড়ির আশেপাশেও আসতে দেবে। জেনে নিন কী কী গাছ আজই বাসায় লাগাবেন।
তুলসি : এই গাছের উপকারী পাতা অনেক কাজে ব্যবহার করা হয়। বিভিন্ন ধরনের শারীরিক উপকারিতা সম্পন্ন এই পাতার আরো বড় উপকারিতা হলো, এই গাছ ও গাছের পাতা মশাকে তাড়াতে কাজ করে। তুলসি পাতায় প্রাকৃতিক এক ধরনের ঘ্রাণ রয়েছে। যা মশা সহ্য করতে পারে না। এই গাছ ঘরের এমন জায়গায় রাখুন যেখানে মশা বেশি প্রবেশ করে।
ক্যাটনিপ : এই গাছে এক প্রকারের প্রাকৃতিক উদ্ভিজ কেমিক্যাল রয়েছে। যা বিড়ালের পছন্দ এবং মশা, মাছি, পোকামাকড়কে দূর করে। এই গাছ পোকামাকড় তাড়ানোর উপাদানের চাইতেও বেশি কার্যকরী। আলো-বাতাস আসে এমন স্থানে খুব সহজেই এই গাছ বেড়ে ওঠে। পুদিনা পাতা : রান্নাঘরের জানালায় বা বারান্দায় যে পুদিনা গাছটি আছে, সেটা শুধু রান্নার স্বাদই বাড়ায় না, পাশাপাশি আপনাকে মশার হাত থেকেও রক্ষা করে। দ্রুত বেড়ে ওঠা এই গাছের পাতা থেকে তৈরি তেল মশাকে দূরে রাখবে। এছাড়া মশা কামড় দেয়া স্থানে পুদিনা পাতা ছেঁচে ম্যাসাজ করলেও আরাম পাওয়া যাবে।
লেমন বাম : এই গাছটি দেখতে অনেকটা পুদিনা পাতার মতো, তবে পুদিনা পাতা নয়। একেবারে অযতেœও এই গাছটি খুব দ্রুত বেড়ে ওঠে।
সেইজ : সেইজ গাছ অনেকটা তুলসির মত। এই পাতার ধোঁয়া মশা দূর করে। ঘরে সন্ধ্যার সময়ে কয়েকটি সেইজ পাতা পুড়িয়ে ধোঁয়া করলে সুমিষ্ট গন্ধ থাকবে ও মশাও দূর হবে।
[তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট]

The Post Viewed By: 81 People