চট্টগ্রাম সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ আগস্ট, ২০১৯ | ১:০৬ পূর্বাহ্ণ

‘নো ওয়ে আউট’

সকালে ঘুম থেকে উঠে সাফা কবির দেখেন, সে অপরিচিত এক জায়গায় রয়েছেন। এই স্থানটি যেমন অপরিচিত, তেমনি সামনে দাঁড়িয়ে থাকা জোভান নামে ছেলেটিও তার অপরিচিত। কিন্তু জোভান খুব স্বাভাবিকভাবে সাফার সঙ্গে কথা বলতে থাকে। এমনভাবে কথা বলে যেন সাফা কবির তার স্ত্রী। এজন্য সাফা জোভানকে হুমকি দিয়ে বলেন, যদি তাকে বাসায় যেতে না দেয়া হয় তবে চিল্লাচিল্লি শুরু করবে। জোভান অনেক বোঝানোর চেষ্টা করে। কিন্তু সাফা কোনো কথাই শুনতে চায় না। আর শুনবেই বা কেন সে তো জোভানকে চিনে না। পরে জোভানের বাবা-মা এসে বুঝিয়ে বলে কিন্তু সাফা জোভানের বাবা-মাকেও চিনেন না। এক পর্যায়ে জোভান অজ্ঞান হয়ে যায়। জ্ঞান ফেরার পর জোভান দেখতে পায়, সে একটা রুমে পড়ে আছে। তার পায়ের সঙ্গে শিকল দিয়ে বাঁধা সুটকেস, তার ভেতর এক মেয়ের লাশ। এ দৃশ্য দেখে জোভান ভয়ে কাঁপতে থাকে আর দ্রুত পা থেকে শিকল আলাদা করার চেষ্টা করে। কিন্তু কিছুতেই শিকল ছাড়াতে পারে না। তারপর ঘটতে থাকে নানা ঘটনা। এমন গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে একক নাটক ‘নো ওয়ে আউট’। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। নাটকটির কেন্দ্রীয় দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাফা কবির ও ফারহান আহমেদ জোভান। ঈদের দিন রাত ১১টায় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল দীপ্ত টিভিতে প্রচার হবে নাটকটি।

The Post Viewed By: 121 People

সম্পর্কিত পোস্ট