চট্টগ্রাম সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৫ আগস্ট, ২০১৯ | ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

গুজব থেকে গণপিটুনী : আমাদের করণীয়

সারা দেশে গুজবে কান দিয়ে গণপিটুনীর বহু ঘটনা ঘটেছে, যার শিকার হয়েছে বহু নিরপরাধ মানুষ। ছেলে ধরা সন্দেহে কোন মানুষকে আটক করতে পারলেই উত্তেজিত জনতা নির্মম ও অমানবিক গণপিটুনীর মাধ্যমে বহু নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করেছে, যার মধ্যে রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় তাসলিমা বেগম নামের এক মধ্যবয়সী মহিলার সন্তানের স্কুল ভর্তি বিষয়ে খোঁজখবর নিতে স্কুলে গমনের পর কতিপয় অভিভাবকদের সন্দেহের জের ধরে এক পর্যায়ে উত্তেজিত জনতা গণপিটুনী দিয়ে মেরে ফেলে তাসলিমা বেগমকে। গণপিটুনীতে তসলিমা বেগমের মৃত্যু সহ আরো বহু গণপিটুনীর ঘটনায় সারা দেশে ছেলে ধরা গুজবে বহু নিরপরাধ মানুষের মৃত্যু হয়েছে, নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তসলিমা বেগমের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হওয়ার পর ভিডিও ফুটেজ দেখে একাধিক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে, যাদের মধ্যে অন্যতম আসামি হৃদয়, হৃদয় কর্তৃক তসলিমা বেগমকে নির্মম আঘাতের ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, যার মধ্যে ফুটে উঠেছে নিষ্ঠুরতা, অমানবিকতা।
হৃদয় গংরা কোন পেশাদার অপরাধী নয়, শুধুমাত্র ছেলে ধরা গুজবে কান দিয়ে উত্তেজনার বশে নিজের হাতে আইন তুলে নিয়ে হত্যা করেছে তসলিমা বেগমকে। পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে, এমন গুজবে বহু গণপিটুনীর ঘটনাই নয়, কমবেশী সারা বছরই সারা দেশে নিজের হাতে আইন তুলে নিয়ে গণপিটুনীর মতো অমানবিক ঘটনার সৃষ্টি হয়। এ ধরনের ঘটনায় একাধিক মানুষের অংশগ্রহণের ফলে কারা আসামি হবে তা নির্ণয় করা সম্ভব হয় না। আশার কথা, তসলিমা বেগমকে গণপিটুনী দিয়ে মেরে ফেলার ঘটনার ভিডিও ফুটেজে মূল আসামিদের সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে এবং আসামীদের ধৃতও করা হয়েছে ইতোমধ্যে। আইনের চোখে হৃদয়রা অপরাধী, শাস্তিও পাবে নিঃসন্দেহে তবে হৃদয়রা কেনো, কি কারণে এ নির্মম ঘটনার জন্ম দিয়েছে, তার উত্তর নেই হৃদয়দের কাছেই। বাংলাদেশে গুজব ছড়াতে বেশি সময় লাগে না, সবসময়েই বাংলাদেশে যেকোন বিষয়ে গুজব ছড়ায়, যার অধিকাংশই সত্যিকারের গুজব। পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে গুজব সহ যে-কান প্রকার গুজব এবং কোন অপরাধীকে সনাক্ত করতে পারলেই মারধর নয়, অপরাধীকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া নাগরিকের দায়িত্ব। বারবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে বিধায় এ ধরনের ঘটনা সংঘটনের পরিণতি ও ভয়াবহতা বিষয়ে গণসচেতনতার কোন বিকল্প নেই। সর্বোপরি গুজব বিষয়ে সুনাগরিকের সঠিক সিদ্ধান্তই দেশ থেকে চিরতরে গুজব ও গণপিটুনী বন্ধ হবে নিঃসন্দেহে।

জুবায়ের আহমেদ
শিক্ষার্থী, ডিপ্লোমা ইন জার্নালিজম, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়া (বিজেম)।

The Post Viewed By: 85 People

সম্পর্কিত পোস্ট