চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৫ আগস্ট, ২০১৯ | ১:৩৬ পূর্বাহ্ণ

ঈদ আনন্দে মুখর বিনোদন কেন্দ্র

নগরের ফয়’স লেক সি-ওয়ার্ল্ডের পাড়ে বসে মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) বিকেলে পানিতে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন ফয়সাল ইকবাল। মুঠোফোনটি বন্ধুকে জমা দিয়ে পানিতে নেমে পড়লেন তিনি। ডুব দিয়ে উঠেই চোখে মুখে ছড়িয়ে পড়লো স্বস্তি। বললেন, ‘অনেকদিন পর যেন প্রাকৃতিক আবহে নিজেকে ফিরে পেলাম। প্রতি বছর ছুটিতে এখানে ছুটে আসি’। ঈদুল আজহার ছুটি বুধবার (১৪ আগস্ট) শেষ হলেও শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি হওয়ায় এবার বাড়তি আনন্দ উপভোগ করছেন নগরবাসী। দূরে কোথাও নাই বা হোক, নগরের ভেতরে বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রতো আছে। তাই ফয়সালের মতো বিনোদনপ্রেমীরা এখন বিনোদন কেন্দ্রে সময় কাটাচ্ছেন। ফয়’স লেক এমিউজমেন্ট পার্ক ছাড়াও পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, ভাটিয়ারি গলফ ক্লাব, চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা, অভয়মিত্র ঘাট, আগ্রাবাদ জাম্বুরি মাঠ পার্কসহ বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে বিকেল থেকে উপচেপড়া ভিড় দেখা যায়। মিজানুল হায়দার নামে এক পর্যটক বলেন, নগরের জামালখান মোড়ে আমাদের বাড়ি। তবে থাকি ঢাকায়। সেখানে একটি কর্পোরেট অফিসে কাজ করি। ছুটিতে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে বাড়িতে এসেছি। অফিসের ব্যস্ত সময়ে কোথাও বেড়ানোর সুযোগ পাই না। তাই বাড়িতে এলেই ফয়’স লেকসহ বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে ঘুরতে যাই।- বাংলানিউজ
ফয়’স লেক কনকর্ড এমিউজমেন্ট পার্কের এসিসটেন্ট ম্যানেজার (মার্কেটিং) অভিজিৎ পাল জানান, বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে দর্শনার্থীরা ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে ফয়’স লেক আসছেন। ঈদের দিন ও পরদিন ৩২শ-৩৫শ দর্শনার্থী টিকিট কিনেছেন। আশা করছি সামনে ভিড় আরও বাড়বে। তিনি জানান, ঈদ উপলক্ষে পার্কে শিশুদের জন্য কিছু ইভেন্ট রাখা হয়েছে। বড়দের জন্য রয়েছে গেইম শো। আছে ঈদ র‌্যাফেল ড্র। ফয়’স লেকে বেশ কিছু আধুনিক রাইড আছে। সার্কাস

সুইং, বাম্পার কার, বাম্পার বোট, ফ্যামিলি রোলার কোস্টার, জায়ান্ট ফেরিস হুইল, ড্রাই স্লাইড, ফ্যামিলি ট্রেইন, প্যাডেল বোট, ফ্লোটিং ওয়াটার প্লে, পাইরেট শিপের মতো আকর্ষণীয় সব রাইড। এসব রাইডে শিশুদের পাশাপাশি তরুণদেরও চড়তে দেখা গেছে।
এদিকে নগরীর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, ভাটিয়ারি গলফ ক্লাব, চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা, আগ্রাবাদ জাম্বুরি মাঠ পার্ক, শিশু পার্কে দর্শনার্থীর ভিড় দেখা গেছে। পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে এসেছেন সরকারি কর্মকর্তা মহিউদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, অন্য সময় নিজেও সময় পাই না। তাই স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে তেমন বেড়ানো হয় না। তাই ছুটিতে সৈকতে বেড়াতে চলে আসলাম।

The Post Viewed By: 50 People

সম্পর্কিত পোস্ট