চট্টগ্রাম সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৫ আগস্ট, ২০১৯ | ১:২১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, বোয়ালখালী

দুর্গন্ধে পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে

বোয়ালখালীতে অবিক্রিত চামড়া ফেলে লাপাত্তা মৌসুমী ব্যবসায়ীরা

উপজেলায় অবিক্রিত শত শত কোরবানি গরু, মহিষ ও ছাগলের চামড়া পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে বিভিন্ন সড়কের পাশে এবং খালে। গত দুইদিনে এগুলোতে পচন ধরায় দুর্গন্ধে এলাকায় থাকতে পারছে না কেউ। এতে মারাত্মক সব রোগ ছড়িয়ে পড়ার আশংকা করছেন এলাকাবাসী।
কোরবানির চামড়া বর্জ্য হিসেবে জনসম্মুখে এটা প্রথমবারের মতো ঘটনা। পরিত্যক্ত চামড়ার দুর্গন্ধের কারণে উপজেলার বিভিন্নস্থানের পরিবেশ রীতিমত বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। চরম দুর্গন্ধে এসব এলাকা দিয়ে চলাচল করাও দায় হয়ে পড়েছে। গতকাল বুধবার বোয়ালখালীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, চামড়া বিক্রি করতে না পেরে শত শত চামড়া ফেলে পালিয়ে গেছে মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরা। সঠিক দাম না পাওয়াতে এমনটি হয়েছে বলে অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এদিকে গ্রামে বর্জ্য অপসারণের ব্যবস্থা না থাকাতে তৈরি হয়েছে বিব্রতকর পরিস্থিতি। স্থানীয় জনপ্রতিনিধরা মৌসুমী ব্যবসায়ীদের ডেকে কোনো কোনো স্থানে মাটিতে পুঁতে ফেলতে নির্দেশনা দিচ্ছেন বলে জানা গেছে। সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার প্রধান প্রধান খালের মধ্যে বোয়ালখালী খাল, ভা-ালজুরি, ভারাম্বাখাল, হাওলা, রায়খালী, ছন্দারিয়া, বামন ইত্যাদি খালে ভেসে বেড়াচ্ছে চামড়া। এগুলো কোথাও কোথাও আটকে গিয়ে দুর্গন্ধে মানুষ থাকা দায় হয়ে পড়েছে। এছাড়া পোপাদিয়া অন্নপূর্ণা হাট এলাকা, বেঙ্গুরা, হাজিরহাট, পশ্চিম গোমদ-ী, কড়লডেঙ্গা এলাকায় রাস্তার ধারে পড়ে থাকতে দেখা গেছে অবিক্রিত শতশত চামড়ার স্তুপ। গতকাল বুধবার পর্যন্ত এগুলো সরানো হয়নি। অধিকাংশের মালিকও খুঁজে পাওয়া যায়নি। বোয়ালখালীর হাজীরহাটের আড়তদার মো. নুরু আলম পূর্বকোণকে জানান, সংগ্রহকারীদের থেকে আমরা চামড়া কিনেছি ৫০ থেকে সর্বোচ্চ দেড়শ টাকা দরে। এতে সংগ্রহকারীদের গাড়ী ভাড়াও জুটবে না। সুতরাং চামড়া ফেলে পলায়ন ছাড়া উপায় নাই।

The Post Viewed By: 48 People

সম্পর্কিত পোস্ট