চট্টগ্রাম সোমবার, ২৬ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৫ আগস্ট, ২০১৯ | ১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

ইমাম হোসাইন রাজু

চমেক হাসপাতালে শীঘ্রই চালু হচ্ছে ক্যান্সার নির্ণয় মেশিন

নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগ

হ সাড়ে ৫ কোটি টাকার
মেশিনটি এলো যুক্তরাষ্ট্র থেকে
হ আগামী দু’মাসের মধ্যেই
সুফল মিলবে

ক্যান্সারের জীবাণু শনাক্তকরণ, বোন স্ক্যান, সিটি স্ক্যানসহ বিভিন্ন রোগ নির্ণয়ের অত্যাধুনিক যন্ত্র স্পেক্ট সিটি তথা ফিউশন মেশিন চালু হচ্ছে ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিসিন এন্ড এলায়েড সায়েন্সে। ইতোমধ্যে মানুষের ক্যান্সার রোগ নির্ণয়ের অত্যাধুনিক এ মেশিনটি স্থাপনের কাজ শেষ করেছে বিভাগটি।
তবে মেশিন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ও নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগের প্রকৌশলীরা মেশিন পরিচালনাকারীদের প্রশিক্ষণ ও পরীক্ষণের কাজ শেষ করার পর তা রোগীদের জন্য উন্মুক্ত করা হবে বলে জানা গেছে। আগামী দু’মাসের মধ্যেই রোগীরা এ মেশিনের সুফল পেতে শুরু করবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দুই বছর আগে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পেছনে অবস্থিত নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগ রোগীদের সেবা নিশ্চিতের লক্ষ্যে বোন স্ক্যান, ব্রেন স্ক্যান ও ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ নির্ণয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাবনা পাঠায়। প্রস্তাবনার পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র থেকে সিমেন্স ব্র্যান্ডের অত্যাধুনিক স্পেক্ট সিটি তথা ফিউশন মেশিনটি আনা হয়। প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকা ক্রয়ে অত্যাধুনিক এ মেশিন চট্টগ্রামের আর কোথাও নেই। শুধুমাত্র ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয় হাসপাতালের নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগে রয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বাস্থ্যসেবা খাতে যুগান্তকারী এই মেশিন ক্যান্সার চিকিৎসায় সারা বিশে^ একটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি হিসেবে গণ্য করা হয়। বছর কয়েক আগে দেশের দুটি হাসপাতালে আসলেও চট্টগ্রামে এই প্রথম এমন অত্যাধুনিক মেশিন স্থাপন করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী দু’মাসের মধ্যেই রোগীরা এ মেশিনের সেবা পেতে শুরু করবে। এতে করে ক্যান্সার রোগ নির্ণয়ের উপস্থিতি সম্পর্কে জানা যাবে এ যন্ত্রের মাধ্যমে। এছাড়া বোন স্ক্যান ও সিটি স্ক্যান পরীক্ষা করা যাবে এ যন্ত্রের মাধ্যমে।
এদিকে, অন্য মেশিনের সাহায্যে বোন স্ক্যান করাতে বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ৫ থেকে ৮ হাজার টাকা নিলেও নিউক্লিয়ার মেডিসিন এন্ড এলায়েড সায়েন্সে নেয় মাত্র এক হাজার টাকা। তবে অত্যাধুনিক এ মেশিনের খরচের বিষয়ে এখনো কোন ফি নির্ধারণ করা হয়নি বলে জানিয়েছেন বিভাগের পরিচালক।
ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিসিন এন্ড এলায়েড সায়েন্সে, চট্টগ্রামের পরিচালক ডা. আবু হায়াত মো. রকিবুল হক পূর্বকোণকে বলেন, ‘সিটি স্ক্যান ও গামা ক্যামেরার সমন্বয়ে গঠিত ফিউশন মেশিন। যা দিয়ে মানুষের ক্যান্সার, বোন স্ক্যান, ব্রেন স্ক্যান পরীক্ষা অতি সহজেই করা যায়। এই মেশিন আমরা যুক্তরাষ্ট্র থেকে এনেছি। স্থাপনের কাজ শেষ, তবে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ও আমাদের প্রকৌশলীরা যারা মেশিনটি পরিচালনা করবেন তাদের প্রশিক্ষণ দেয়ার পর তা রোগীদের জন্য উন্মুক্ত করা হবে’।
‘এখনো ফি’র বিষয় নির্ধারণ করা হয়নি। আমরা জনগণকে সেবা দিতে চাই। তবে রোগীদের বিষয় মাথায় রেখেই তা নির্ধারণ করা হবে। সর্বনি¤œ ফি যাতে দিতে পারে সে বিষয়টি থাকবে বলেও জানান তিনি’।

The Post Viewed By: 591 People

সম্পর্কিত পোস্ট