চট্টগ্রাম সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৭ জুলাই, ২০১৯ | ১:০৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, থানচি

বন্যাদুর্গতদের মাঝে ভোজনের ব্যবস্থা ডিসকভার ও টংমাহাং রেস্টুরেন্টে

বান্দরবানের থানচি সদর ইউনিয়ন পরিষদের যৌথ আয়োজনে বন্যাদুর্গতদের মাঝে মধ্যাহ্ন ভোজন ও রাতে ভোজন ব্যবস্থা করালেন ডিসকভার ও টংমাহাং রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। গত ১৫ জুলাই দুপুরে ও রাতে এ খাওয়া ব্যবস্থা করা হয়।
গত ১১ জুলাই ও ১৩ জুলাই প্রবল ও ভারি বৃষ্টিতে সাঙ্গু নদীর পানির বৃদ্ধিতে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়, দুর্গত মানুষ পরিবারগুলো নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে থানচি উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রায় ১২০ পরিবার সাড়ে তিনশ জনকে এ খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর আগেরদিন বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি পক্ষে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রশাসনিকভাবে শুকনো খাবার, চাল, ডাল, তৈল ইত্যাদি বিতরণ করা হলেও রান্না করে খাওয়া আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে চুলা ব্যবস্থাও অপর্যাপ্ত।
বন্যা পানির কমলে ও ঘরগুলো পরিষ্কার করতে সময় প্রয়োজনের আশ্রয় কেন্দ্র ছাড়তে পারছে না অনেকে। সুতরাং আরো কয়েকদিন সময় লাগতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা।
সরকারি কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের সম্মিলিতভাবে ২০১৭ সালে কল্যাণে একটি সমবায় সমিতি স্থাপিত হয়, ওই সমিতি ২০১৮ সালে থানচি উপজেলা সদরে পর্যটক ও একটি শ্রেণির খাওয়া-দাওয়া থানচি বাজারে উন্নতমানের গড়ে উঠেনি। তাই উন্নতমানে মানসম্মত ব্যবস্থা হিসেবে সমিতি ডিসকভার হোটেল ও টংমাহাং নামে একটি রেস্টুরেন্ট খোলা হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি পর্যটকদের দেশের বিভিন্ন স্থানের মতো উচ্চ পর্যায়ের মানুষের জন্য রকমারি প্রয়োজনীয় খাওয়া থাকার সবধরনের মানসম্মত ব্যবস্থা ও সেবা দিয়ে আসছে।
টংমাহাং ও ডিসকভারী রেস্টুরেন্ট পরিচালনা পর্ষদে সাধারণ সম্পাদক ও থানচি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ বলেন, সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম অক্লান্ত প্রচেষ্টা আমরা সম্মিলিত উদ্যোগের বন্যা কবলিত ও দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি, আমরা ভবিষ্যতে ও দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াবো। দুপুরের মধ্যাহ্ন ভোজন বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল হক মৃদুল, ওসি জোবারুল হক, প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ, পিআই ও তারিকুল ইসলাম ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান মাংসার ¤্রাে।

The Post Viewed By: 55 People

সম্পর্কিত পোস্ট