চট্টগ্রাম বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ জুলাই, ২০১৯ | ২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

বিদায় ভারত, ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

সেমিফাইনালে থমকে গেল ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান। কোহলিদের ১৮ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠে গেল নিউজিল্যান্ড। কিউইদের ৮ উইকেটে সংগ্রহ করা ২৩৯ রানের বিপরীতে খেলতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারের ৩ বল বাকি থাকতে ভারতের ইনিংস থামল ২২১ রানে। ভারতের হয়ে ব্যাট হাতে ৭৭ রানে লড়াই করেন জাদেজা। ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর অবিশ্বাস্য এক গল্প প্রায় লিখে ফেলেছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। আটে নেমে ওয়ানডে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ইনিংস খেলেও দলকে এনে দিতে পারলেন না রূপকথার জয়। এরপরও দলের সেরা ফিনিশার ৭২ বলে ৫০ রান করা ধোনিতে স্বপ্ন বেঁচে ছিল ভারতের। ৪৯ তম ওভারে ধোনিকে রান আউট করে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন মার্টিন গাপটিল। ঐ একটি রান আউটই ম্যাচের ভাগ্য নির্ণয় করে দেয়। ১০ ওভারে ৩৭ রান খরচ করে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের সেরা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের ম্যাট হেনরি। বারবার সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়ে এক সময় সেমিফাইনালের দল হিসেবে পরিচিতি পেয়ে গিয়েছিল নিউনিউজিল্যান্ড। ফাইনালের সঙ্গে আড়ি অবশেষে কেটে যায় গত বিশ্বকাপে। এবার তারা টানা দ্বিতীয়বার জায়গা করে নিল ফাইনালে।
শুরু থেকে ধুঁকতে থাকা ভারত একপর্যায়ে ৯২ রানে হারিয়ে ফেলে ৬ উইকেটে। এরপর ধোনি-জাদেজার ১১৬ রানের অবিশ^াস্য জুটিতে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছিল ভারতীয়রা। শেষ ১০ বলে ম্যাচ জয়ের জন্য ভারতের প্রয়োজন ২৪ রান। ক্রিজে ছিলেন ধোনি। সমর্থকদের প্রত্যাশা ছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ফেরাবেন তিনি ২ এপ্রিল, ২০১১’র স্মৃতি। সেবার ম্যাচ জিতিয়ে দেশকে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু এবার আর পারলেন না। ব্যাট হাতে গোটা টুর্নামেন্টে ব্যর্থ হলেও দলের হয়ে বিশ্বকাপের সবচেয়ে মূল্যবান কাজটা ফিল্ডিংয়ে পুষিয়ে দিলেন মার্টিন গাপটিল। ম্যাজিক্যাল থ্রোয়ে ধোনিকে রান আউট করে ভারতকে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে দিলেন কিউই ওপেনার। আগের দিন মঙ্গলবার ৪৬.১ ওভারে কিউইরা করেছিল পাঁচ উইকেটে ২১১ রান। এর সঙ্গে গতকাল বুধবার নিউজিল্যান্ড যোগ করল আরও ২৮ রান। ২৪০ রান করলে ভারত পৌঁছে যাবে ফাইনালে। এই অবস্থায় ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিপর্যয় নামে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপে। দুরন্ত ছন্দে থাকা রোহিত শর্মাকে ফেরালেন ম্যাট হেনরি। টম লাথামের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন রোহিত শর্মা ৭ বল খেলে ১ রান করেন। বিশ্বকাপে পাঁচটি সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছে ‘হিটম্যান’-এর। ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টানা তিনটি ম্যাচে সেঞ্চুরি করা রোহিত এ দিন আগেই ফিরে গেলেন। বিরাট কোহলিও আউট হলেন মাত্র এক রানে ট্রেন্ট বোল্টের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। এরপর লোকেশ রাহুল ১ রান করে ম্যাট হেনরির বলে টম ল্যাথামের হাতে ক্যাচ দেন। রাহুলের বিদায়ে লজ্জার এক রেকর্ডও গড়ে ফেলে ভারত। ১, ১ এবং ১, ওয়ানডে ইতিহাসে এর আগে কোন ম্যাচে টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান ১ রানে আউট হয়নি। ৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা ভারতের জন্য প্রয়োজন ছিল বড় জুটির। কিন্তু ধীরগতিতে খেলতে থাকা দিনেশ কার্তিকও সাজঘরে ফিরেন ব্যক্তিগত ৬ রানের মাথায়। ম্যাট হেনরির বলে জেমস নিশামের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া ও ঋষভ পান্থে আস্থা খোঁজার চেষ্টা করছিল ভারত। কিন্তু দলীয় ৭১ রানে মিচেল স্যান্টনারের বলে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরের পথে হাঁটেন ঋষভ পান্থ। আউট হওয়ার আগে তিনি ৫৬ বলে ৩২ রান করেন। ঠিকতে পারেননি হার্দিক পান্ডিয়াও। সাজঘরে যাওয়ার আগে তিনি করেন ৩২ রান। তিনি স্যান্টনারের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দেন। ৯২ রানে ছয় উইকেট হারানো পর লড়তে থাকেন ধোনি এবং জাদেজা। ২০৮ রানে ট্রেন্টের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দেন জাদেজা। ফেরার আগে ৫৯ বলে ৪টি চার ও ৪টি ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ ৭৭ রান করেন তিনি। এরপর ব্যক্তিগত ৫০ রানের মাথায় রান আউট হন ধোনি। ব্যাট করতে নেমে কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরেন ভুবনেশ্বর। ৫ রান করে যুবেন্দ্র চাহালও সাজঘরে ফেরেন। তবে অপরাজিত থাকেন বুমরাহ। এদিকে বল হাতে ম্যাট হেনরির নেন ৩ উইকেট, স্যান্টনার নেন ২ উইকেট, ট্রেন্ট বোল্ট নেন ২ উইকেট এবং নিশাম ও লকি ফার্গুসন নেন একটি করে উইকেট।
এর আগে গতকাল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারতের বিরুদ্ধে বৃষ্টি বিঘিœত সেমিফাইনালের প্রথম দিনে ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১১ রান তুলেছিল নিউজিল্যান্ড। গতকাল রিজার্ড ডে’তে বাকি ৩.৫ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে আরও ২৮ রান যোগ করে কিউইরা। অর্থাৎ টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৯ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। ভুবনেশ্বর কুমার গত দিনের অসমাপ্ত ওভারের বাকি পাঁচটি বলে ৬ রান খরচ করেন। পরের ওভারে বল করতে এসে বুমরাহ দেন ৮ রান। তবে শেষ বলে রবীন্দ্র জাদেজার দুরন্ত থ্রোয়ে রানআউট হন রস টেলর। ফিরে যাওয়ার আগে ৯০ বলে ৭৪ রান করেন টেলর। ৪৯তম ওভারে ৭ রানের বিনিময়ে টম লাথাম (১১ বলে ১০) ও ম্যাচ হেনরির (২ বলে ১) উইকেট তুলে নেন ভুবনেশ্বর। শেষ ওভারে বুমরাহ মাত্র ৭ রান উপহার দেন নিউজিল্যান্ডকে। মিচেল স্যান্টনার ৬ বলে ৯ ও ট্রেন্ট বোল্ট ৩ বলে ৩ রান করে অপরাজিত থাকেন।
নিউজিল্যান্ড ইনিংস : ২৩৯/৮(৫০/৫০)
ব্যাটিং
মার্টিন গাপটিল-কট কোহলি বল বুমরাহ-১
হেনরি নিকোলাস- বোল্ড জাদেজা-২৮
কেইন উইলিয়ামসন-কট জাদেজা বল চাহাল-৬৭
রস টেইলর-রানআউট (জাদেজা)-৭৪
জেমস নিশাম-কট কার্তিক বল পান্ডিয়া-১২
কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম-কট ধোনি বল ভুবনেশ^র-১৬
টম লাথাম-কট জাদেজা বল ভুবনেশ^র-১০
মিচেল স্যান্টনার-অপরাজিত-৯
ম্যাট হেনরি-কট কোহলি বল ভুবনেশ^র-১
ট্রেন্ট বোল্ট-অপরাজিত-৩
বোলিং
বোলার-ওভার-রান-উইকেট
ভুবনেশ^র কুমার-১০-৪৩-৩
জসপ্রিত বুমরাহ-১০-৩৯-১
হার্দিক পান্ডিয়া-১০-৫৫-১
রবীন্দ্র জাদেজা-১০-৩৪-১
যুবেন্দ্র চাহাল-১০-৬৩-১
ভারত ইনিংস : ২২১/১০ (৪৯.৩/৫০)
ব্যাটিং
লোকেশ রাহুল-কট লাথাম বল হেনরি-১
রোহিত শর্মা-কট লাথাম বল হেনরি-১
বিরাট কোহলি-এলবিডব্লিউ বোল্ট-১
ঋষভ পান্থ-কট গ্র্যান্ডহোম বল স্যান্টনার-৩২
দীনেশ কার্তিক-কট নিশাম বল হেনরি-৬
হার্দিক পান্ডিয়া-কট উইলিয়ামসন বল স্যান্টনার-৩২
এমএস ধোনি-রানআউট (গাপটিল)-৫০
রবীন্দ্র জাদেজা-কট উইলিয়ামসন বল বোল্ট-৭৭
ভুবনেশ^র কুমার- বোল্ড ফার্গুসন-০
যুবেন্দ্র চাহাল-কট লাথাম বল নিশাম-৫
জসপ্রিত বুমরাহ-অপরাজিত-০
বোলিং
বোলার-ওভার-রান-উইকেট
ট্রেন্ট বোল্ট-১০-৪২-১
ম্যাট হেনরি-১০-৩৭-৩
লুকি ফার্গুসন-১০-৪৩-১
কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম-২-১৩-০
জেমস নিশাম-৭.৩-৪৯-১
মিচেল স্যান্টনার-১০-৩৪-২

The Post Viewed By: 54 People

সম্পর্কিত পোস্ট