সংবাদ: সম্পাদকীয়

জাহাজভাঙা শিল্প এবং উপকূলীয় পরিবেশ

জাহাজ ভাঙার গোড়ার কথা …….. ষাটের গোড়ার দিকে এক সামুদ্রিক ঝড়ে জলোচ্ছ্বাসে অতিদূর সমুদ্রে হাল ভেঙে একদা এক নাবিক হারিয়েছিলো পথের দিশা। সেই নাবিকের জাহাজ এসে ভিড়েছিলো ফৌজদারহাটের সমুদ্র সৈকতে। সেই গ্রীক জাহাজটি আর সমুদ্রে ভাসানো সম্ভব হয় নি। দীর্ঘদিন এই জাহাজ কাত হয়ে পড়েছিলো সৈকতে। সেই জাহাজ পরে ১৯৬৪–তে স্ক্র্যাপ হিসেবে ভাঙার দায়িত্ব নিয়োছিলো স্টিল হাউসের স্বত্বাধিকারী শফি ভাই, হাতেম ভাই, জুনু ভাই ও সুজা ভাই ব্যবসায়ী সম্প্রদায়। সমুদ্র দর্শনে এক সময় এই ফৌজদারহাট

সড়ক-উন্নয়ন কর্ম ও দূষণজনিত মৃত্যু

পরিবেশ আইন না মেনে উন্নয়ন কর্মকা– পরিচালনা এবং রাস্তাঘাটের সংস্কার কাজে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক), চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) এর খামখেয়ালি ও যথাকায়দায় ভাঙাচোরা সড়কের মেরামত না হওয়ায় নগরীতে বায়ুদূষণ বিপজ্জনক পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। নগরীর অধিকাংশ এলাকা সারাদিনই ঢাকা থাকে ধূলির চাদরে। এতে জনস্বাস্থ্য

ভোক্তার অধিকার

ভোক্তার অধিকার বাস্তবায়নে এখনো কার্যকর পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না। ভোক্তার স্বার্থ সব দিক দিয়ে উপেক্ষিত। সঠিক দামে সঠিক পণ্যসামগ্রী ক্রয় করা ভোক্তার মৌলিক অধিকার। এটি মৌলিক মানবাধিকারও বটে। কিন্তু তা পাচ্ছে না ভোক্তারা। ভোক্তাশ্রেণী অসংগঠিত ও পরস্পর বিচ্ছিন্ন। এই সুযোগে নীতি–নৈতিকতাহীন ব্যবসায়ীগোষ্ঠী তথা বিক্রেতা বা সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ভোক্তা তথা ক্রেতা

স্মরণ : সম্পাদক স্থপতি তসলিমউদ্দিন চৌধুরী

সম্পাদক স্থপতি তসলিম উদ্দিন উদ্দিন চৌধুরী একটি প্রতিষ্ঠান। তিনি তাঁর পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন অগ্রগতিতে অবদান রেখেছেন। চট্টগ্রাম উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ করে চট্টগ্রামের নাগরিক অধিকার বাস্তবায়নে বহু সভা সেমিনার সিম্পোজিয়াম করে চট্টগ্রামের মানুষের কথা বলেছেন। তাঁর সম্পাদনায় প্রতিষ্ঠিত দৈনিক পূূর্বকোণ পত্রিকার মাধ্যমে চট্টগ্রামের অবকাঠামো উন্নয়ন, শিক্ষা সংস্কার,

সেবার সব দরজা হোক বাধাহীন

মানুষের সেবা করা একটি উত্তম কাজ। ধর্মীয় দৃষ্টিকোণেও এটি অত্যন্ত সওয়াবের। কিন্তু এই সেবার ক্ষেত্রে কতটুকু স্বস্তি পাচ্ছেন সেবাগ্রহীতাগণ তা বলা মুশকিল। বিনিময় ছাড়া সেবা পাওয়া অনেক ক্ষেত্রে কঠিনই বৈকি! দেশের সংবিধানে সব প্রতিষ্ঠান থেকে সাধারণ মানুষের সহজে সেবা পাওয়ার অধিকারকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। বাস্তবক্ষেত্রে তার প্রয়োগ কতটুকু তা কেবল

খাদ্য নিরাপত্তা ও ইঁদুরের গ্রাস

খাদ্য অপচয় ও নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি দেশে প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ খাদ্যশস্য ইঁদুরের গ্রাসেও চলে যায়। যার কারণে কৃষিবিজ্ঞানীরা অপকারী কীট দমনের সঙ্গে ইঁদুর প্রতিরোধেও কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পরামর্শ দিচ্ছেন দীর্ঘদিন থেকেই। কৃষিবিদদের পরামর্শ আমলে নিয়ে সরকার ইঁদুর নিধনে বিশেষ কর্মসূচিও গ্রহণ করে থাকে প্রতিবছর। বিভিন্ন এলাকায় কৃষকদের উদ্যোগে পালিত হয়

প্র্যাংক ভিডিও মানুষকে বানায় বোকা

এই পৃথিবীতে কবে কখন প্রথম প্র্যাংক হয়েছিল তা কেউ জানে না। প্র্যাংক শব্দটির আভিধানিক অর্থ হচ্ছে ‘সকৌতুক বা দূরভিসন্ধিমূলক ছলনা’। এখনকার প্র্যাংক ভিডিও বা ছবির ব্যাপারটা হল, এটা একটা ব্যবহারিক কৌতুক। প্র্যাংক অনেক রকম হতে পারে। যেমন –মোবাইল ফোনে কল। আপনাকে একটা অচেনা নম্বর থেকে ফোন করে বলা হল আপনি

‘বাংলাদেশে চিকিৎসা নেই!’ পাঠক ও বিশেষজ্ঞ…

টিপু সুলতানের মহিশুর ও বেঙ্গালুরু ভ্রমণের নানা পর্যায়ে মাথায় ঘুরছিল ‘বাংলাদেশে চিকিৎসা নেই!’ কথাটি। বাংলাদেশের চিকিৎসার্থীদের নানা বক্তব্যের ভিত্তিতে ‘বাংলাদেশে চিকিৎসা নেই!’ প্রতিবেদনটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হলে ব্যাপক পাঠক প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান থেকে ফেরদৌস গাজি মর্মস্পর্শী অভিজ্ঞতা জানিয়ে ই–মেইল করেন। তিনি বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার নানা অসঙ্গতি নিয়ে

একজন সম্পাদক : স্থপতি তসলিমউদ্দিন উদ্দিন…

কেউ আসে কেউ যায় Ñ বিশ্বশালার ভাঙ্গা পাড়ায়, বিদায় দিতে নাহি চায়। পৃথিবীর কোথাও না কোথাও এ মুহূর্তে কেউ জন্ম নিচ্ছে, আবার কেউ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। এ চিরাচরিত নিয়মে পৃথিবী চলে। যদি জন্ম হয় তবে মৃত্যু আবশ্যম্ভাবী। এ মৃত্যুকে ঠেকানো সাধ্যকার। মৃত্যুকে পরাজিত করার মত কোন মহা শক্তিধর কিংবা

শ্রদ্ধা, স্মরণ ও শোক : স্থপতি…

যুদ্ধ তাঁর কাছ থেকে শিখতে হবে। দীর্ঘদিন মুখ দিয়ে খান নি। এক বিশেষ পাউডার নলের মাধ্যমে সরাসরি পাকস্থলিতে নিজেই দিয়ে দিতেন।মরণব্যাধি শরীরকে গিলে ফেলতে চাইছে,