সংবাদ: সম্পাদকীয়

যুক্তরাষ্ট্রে ডোনাল্ড ট্রাম্প-এর যুগের শুরু, ভবিষ্যৎ কোন্ পথে?

প্রতিবাদ আর সমর্থকদের উচ্ছ্বাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন ডোনাল্ড জে ট্রাম্প। তাঁর শপথের মধ্য দিয়েই শুরু হলো ‘ট্রাম্প যুগ’র। অবসান হলো দেশটির একমাত্র কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট বারাক হোসেন ওবামার আট বছরের শাসনামলের। শপথের পর আনুষ্ঠানিকভাবে জাতির উদ্দেশে দেয়া অভিষেক ভাষণে তিনি বিশ্বের গতিধারা নির্ধারণের অঙ্গীকার ঘোষণা করেছেন। আমেরিকাকে নিজেদের মতো গড়ে গড়ে তোলার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেছেন। বলেছেন, বর্ণবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার কথাও। অঙ্গীকার করেছেন জঙ্গিবাদী তৎপরতার মূলোৎপাটনে সর্বশক্তি বিনিয়োগের। সব মার্কিনিকে এক জাতি বিবেচনা করার কথাও বলেছেন। নির্বাচনের আগে যে বিতর্কিত বক্তব্য তিনি দিয়ে এসেছেন, প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর প্রদত্ত বক্তব্যে তার লেশমাত্র দেখা যায়নি। একজন দায়িত্বশীল প্রেসিডেন্টসুলভ বক্তব্যই তাঁর ভাষণে উঠে এসেছে। সংগত কারণে আশা করা হচ্ছে, তিনি সবার প্রেসিডেন্ট হওয়ার চেষ্টা করবেন। মানবিক চেতনায় পুষ্ট জনগণের আশার প্রতিফলন ঘটবে তাঁর প্রতিটি পদক্ষেপে। ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আমরা অভিনন্দন জানাই। আমরা আশা করতে চাই, তাঁর সময়ে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে, অধিকতর

চিকিৎসাসেবা আইন সংশোধন করুন

গত ৩ জানুয়ারী স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইটে ‘চিকিৎসা সেবা আইন-২০১৬’ এর খসড়া প্রকাশ করা হয়। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এখানে স্বাস্থ্যসেবার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পদ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট ও ফার্মাসিস্ট পদ দুটির কথা কোথাও উল্লেখ করেননি। আইনটির ২নং ধারায় স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী ব্যক্তির সংজ্ঞায় সংবিধিবদ্ধ সংস্থার অধীনে নিবন্ধিত চিকিৎসক, মেডিকেল

টেকসই উন্নয়নে চাই দক্ষ জনশক্তি

একটি প্রতিষ্ঠানের বা দেশের দক্ষজনশক্তিই পারে প্রতিষ্ঠানের চেহারা পাল্টে দিতে। কোন দেশের প্রতিষ্ঠানকে উন্নয়নের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যেতে হলে প্রয়োজন দক্ষজনসম্পদ। কারণ দক্ষজনসম্পদই পারে প্রতিষ্ঠানকে শক্তিশালী করে তুলতে। তাই যেকোন প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের আগে যাচাই-বাচাই করে জনবল নিয়োগ দিলে সে প্রতিষ্ঠান কখনও দেউলিয়া বা বধংসের দ্বারপ্রান্তে যেতে পারে না। কারণ দক্ষ জনসম্পদ

ভবিষ্যতে এই পৃথিবী

বিজ্ঞানীদের ধারণা, আমাদের এই পৃথিবী প্রায় চার কোটি পঞ্চাশ লক্ষ বছর আগে সৃষ্টি হয়। এই গ্রহে প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্য যেসব উপাদান দরকার তা সবই বিদ্যমান। পৃথিবী ছাড়া আর কোন সৌরজগৎ নেই যেখানে কোন প্রাণী বাঁচতে পারে। পৃথিবীর তাপমাত্রা প্রাণীর জন্য সহনীয়, কারণ এখানে সূর্য নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান। কিন্তু দিন

উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ

উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে আমাদের সকলের প্রাণপ্রিয় চিরসবুজ-শ্যামলীলার দেশ বাংলাদেশ। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে দেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল। উন্নয়নে দেশ যে এগিয়ে চলেছে তা গ্রামের মানুষের আর্থ- সামাজিক অবস্থা দেখলে বুঝা যায়। আমাদের দেশ ইতিমধ্যে নি¤œ আয়ের দেশের গ্লানি ঘুচিয়ে নি¤œ মধ্য আয়ের দেশের মর্যাদা লাভ করেছে। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের

সনাতন ধর্মের আলোকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি

মহাভারত, ঋগে¦দ, উপনিষদ, গীতার শাশ্বত চিরায়ত বাণীর সর্বত্র সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাণী উচ্চারিত হয়েছে সুস্পষ্টভাবে। এছাড়া সর্বজন শ্রদ্ধেয় আধ্যাত্মিক ও মানবিক গুরু শংকরাচার্য, স্বামী বিবেকানন্দের অমৃত বাণীতে স্থান-কাল-পাত্র ভেদে এগুলোর জীবনঘনিষ্ঠ নান্দনিক প্রতিধ্বনি হয়েছে বিভিন্নভাবে নানা মাত্রিকতায় সবিশেষ তাৎপর্যময়তায়। মহাভারতে অপরাজেয় মহাবীর ভীষ্মের সুদীর্ঘ বিচিত্র জীবন অভিজ্ঞতার সাথে প্রজ্ঞার সুসমন্বয়ে যুধিষ্ঠির

অভাগা আরাকানবাসীর অতীত ইতিহাস কথা

চট্টগ্রামের পার্শ্ববর্তী আরাকান। বর্তমান নাম রাখাইন। আরাকানবাসীর সাথে চট্টগ্রামের ছিল নিবিড় সম্পর্ক। তা হাজার বছরের অনেক আগের কথা। ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দে উপমহাদেশ বিভাগের আগ পর্যন্ত আত্মীয়তা

বিতর্কিত পাঠ্যপুস্তক : সম্পাদক-সংকলকদের বিবৃতি

দেশবাসীর কাছে বিস্ময়ের পাশাপাশি বেশ রহস্যেরও জন্ম দিয়েছে ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের জন্য জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত প্রথম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা পাঠ্য বইয়ের বিচিত্র-সব ভুল ও পাঠ-পরিবর্তনের সামগ্রিক ঘটনা-প্রবাহটি। চলছে নানা উতোর-চাপান ও উদোর পি-ি বুদোর ঘাড়ে তুলে দেওয়া। ইতোমধ্যে বোর্ডের সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের দু’জন কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করা

হযরত মওলানা সৈয়দ দেলাওর হোসাইন মাইজভান্ডারী…

স্রস্টার সর্বশ্রেষ্ঠ প্রিয় মাহবুব বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা আহমদ মোজতাবা (সঃ) এঁর পবিত্র বংশধর মদীনা শরীফ হতে বংশ পরম্পরায় বাগদাদ-দিল্লী-গৌড়নগর-চট্টগ্রাম পটিয়া-ফটিকছড়ি আজিমনগর হয়ে উক্ত গ্রাম সংলগ্ন মাইজভা-ার গ্রামে সাজ্জাদানশীনে গাউছুল আজম হযরত মওলানা শাহ্ ছুফী সৈয়দ দেলাওর হোসাইন মাইজভা-ারী (কঃ) ২৭ ফেব্রুয়ারী ১৮৯৩ ইংরেজী ১৩ ফাল্গুন ১২৯৯ বাংলা শুভ

ইতিহাসে রোহিঙ্গাদের অবস্থান

রোহিঙ্গা শব্দটি এসেছে ‘রোহাঙ্গ’ শব্দ থেকে। আরাকান রাজ্যের অপর নাম ছিল রোহাঙ্গ। মধ্যযুগের আরাকান ও চট্টগ্রামের কবিরা আলাওল, দৌলত কাজী, মরদান, শমসের আলী, আইনুদ্দিন, আবদুল গনি ও অন্যরা তাদের লেখায় আরাকানকে বার বার উল্লেখ করেছেন ‘রোসাং’ ‘রোসাঙ্গো’ দেশ ও ‘রোসাঙ্গো শর, (শহর) নামে। রোহাঙ্গের মূল অধিবাসীদের মধ্যে ছিল হিন্দু, বৌদ্ধ