নীড়পাতা » প্রথম পাতা » ৩৪ বছর পর স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্যে ১০টি বিআরটিসি বাস

চট্টগ্রামবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার

৩৪ বছর পর স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্যে ১০টি বিআরটিসি বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক

হাটহাজারীর মদুনাঘাট এলাকা থেকে দশম শ্রেণিতে পড়–য়া ছেলেকে নিয়ে কলেজিয়েট স্কুলে আসা-যাওয়া করতেন অভিভাবক সুফিয়া বেগম। সকাল সাড়ে ৭টায় ক্লাস শুরু হয়। তাই তাকে বাসা থেকে বের হতে হয় সকাল ৬টায়। কখনো বাসে, কখনো ট্যাক্সিতে করে দুই দফা গাড়ি পাল্টিয়ে ছেলেকে আনা-নেওয়া করেন তিনি। পাঁচ বছর চরম দুর্ভোগ সহ্য করতে হয়েছে তাকে। পরিবহন যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে গত জানুয়ারি মাসে অগত্যা নগরীর লালখানবাজার এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়েছেন ওই অভিভাবক। বাসা ভাড়ায় অনেক টাকা গুনতে হলেও তার উপলব্ধি- তিনি ভাল আছেন। রোজকার দুর্ভোগ-বিড়ম্বনা থেকে রেহাই পেয়েছেন তিনি।
শুধু সুফিয়া বেগম নন, একই দশা হালিশহর এলাকার মো. আবদুল করিমেরও। হালিশহর থেকে ছেলেকে নিয়ে আসা-যাওয়া করেন নাসিরাবাদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে। তাঁকেও পদে পদে চরম দুর্ভোগ আর ভোগান্তি পোহাতে হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে স্কুলবাস থাকলে শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের কষ্ট ঘুচে যেত। সময়ের অপচয় রোধ, নগরীর যানজট নিরসন ও মানসিক যন্ত্রণা থেকে রেহাই পেতো অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা।
চট্টগ্রামের শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দীর্ঘদিনের ভোগান্তি ঘুচাতে উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চট্টগ্রামের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য বিআরটিসির ১০টি স্কুল বাস চালু করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়ার সই করা একটি চিঠি গতকাল সোমবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে পৌঁছেছে। চিঠিতে দেখা যায়, ছাত্রছাত্রীদের জন্য ১০টি বাস সার্ভিস চালুর করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাতায়াতের জন্য বাসগুলো ব্যবহার করতে পারবে।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, গত বছর নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্টুডেন্ট বাস সার্ভিসসহ নয় দফা দাবিতে আন্দোলন করেছিল শিক্ষার্থীরা। জেলা প্রশাসক সেই দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে কাছে স্কুলবাস সার্ভিস চালুর করার জন্য চিঠি লিখেছিল। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০টি বাস চালু করার নির্দেশনা দেন।
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন এই বিষয়ে পূর্বকোণকে বলেন, ‘আমরা মন্ত্রণালয়ের চিঠি পেয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন মানে আমরা বাসও পেয়েছি। আশা করছি, শীঘ্রই বাসগুলো পেয়ে যাব। মন্ত্রণালয়ের প্রক্রিয়া শেষে রোজার মাসে বা রোজার শেষে বাসগুলো চালু করতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত নিয়ে আসার উদ্যোগ নেব।’
প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেওয়া ১০টি বাস শুধুমাত্র স্কুলের শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করবে। জেলা প্রশাসক বলেন, এ বিষয়ে রোড নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। শিক্ষার্থীরা ওই পথে যাতায়াত করবে। প্রধানমন্ত্রীর এই নিদের্শনাকে মহতী উদ্যোগ বলে জানিয়েছেন অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষার্থীরা সাধুবাদ জানিয়েছেন।
নগরীতে ১৮০টি মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। এরমধ্যে সরকারি স্কুল রয়েছে নয়টি। সিটি কর্পোরেশনের রয়েছে ৪৫টি। অন্যগুলো হচ্ছে বেসরকারি। সরকারি নয়টি স্কুলের মধ্যে নাসিরাবাদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় ও নাসিরাবাদ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি করে স্কুল বাস আছে। ১৯৮৫ সালে এরশাদ সরকারের আমলে বাস দুটি দেওয়া হয়। এরপর থেকে নগরীর স্কুলগুলোতে সরকারিভাবে কোনো বাস সার্ভিস চালু করা হয়নি। ৩৪ বছর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের জন্য স্কুল বাস চালুর উদ্যোগ নিয়েছেন।
তবে সশস্ত্র বাহিনী নিয়ন্ত্রিত ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, হালিশহর ক্যান্টনমেন্ট স্কুল, বিএএফ শাহীন কলেজ, নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ ও বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা) স্কুল এন্ড কলেজে নিজস্ব কিংবা ভাড়ায়চালিত বাসে শিক্ষার্থীদের আনা-নেওয়া করা হয়। স্কুলে যাওয়া আসার ক্ষেত্রে পরিবহন ব্যবস্থা থাকায় এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়–য়া ছেলেমেয়েদের নিয়ে টেনশনমুক্ত থাকেন অভিভাবকেরা। অন্যদিকে পরিবহন সুবিধার ফলে আলোচ্য স্কুলগুলোর আশপাশের সড়কে থাকে না কোনো যানজট।
নগরীতে স্কুলবাস না থাকায় ব্যক্তিগত গাড়ি ছাড়াও বাস, ট্যাক্সি, টেম্পো বা রিকশায় চেপে আসা-যাওয়া করতে হয় শিক্ষার্থীদের। পদে পদে দুর্ভোগ আর ভোগান্তি পোহাতে হয়। এছাড়াও দূর-দূরান্ত থেকে আসা ছেলেমেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে ছুটি না হওয়া পর্যন্ত স্কুলের গেটের বাইরে বা বারান্দায় অপেক্ষায় থাকতে হয় অভিভাবকদের। থাকতে হয় টেনশনে। অভিভাবকদের সময় যেমন অপচয় হয়, তেমনি কাজকর্মেও ব্যাঘাত ঘটে। এছাড়াও স্কুল ছুটির সময় তীব্র যানজট লেগে থাকে স্কুলকেন্দ্রিক সড়কগুলোতে।

Share
  • 2.7K
    Shares