নীড়পাতা » প্রথম পাতা » উৎসবের সময় বেঁধে দেয়ায় বিরোধীরা খুশি হচ্ছে

উৎসবের সময় বেঁধে দেয়ায় বিরোধীরা খুশি হচ্ছে

আহমেদ ইকবাল হায়দার , বিশিষ্ট নাট্যজন

হাজার বছরের বাঙালির ইতিহাস বহনকারী নববর্ষের অনুষ্ঠান গত কয়েক বছর ধরে সন্ধ্যার আগে শেষ করার জন্য প্রশাসন থেকে জানিয়ে দেয়া হচ্ছে। তাহলে প্রশ্ন হলো প্রশাসন কি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ? অথচ বাণিজ্য মেলাসহ বছরব্যাপী বিভিন্ন মেলা চলছে অনেক রাত পর্যন্ত। সেখানে কোন সমস্যা হয় না। শুধু নববর্ষের অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে নিরাপত্তার অজুহাত আসবে কেন! এটা বিশ্বাসযোগ্য হয় না। বলা হয়ে থাকে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে অতীতে হামলার মতো কিছু অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটেছে। যা ঘটেছে সেটি বাঙালি জাতি দেখেছে। কিন্তু তাই বলে নববর্ষের অনুষ্ঠানে সীমা ঠিক করে দেওয়াটা ঠিক নয়। তাহলে ধরে নিতে হবে আমরা নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হচ্ছি। আর সংস্কৃতিকে যদি সময় বেঁধে দেয়া হয় তাহলে সংস্কৃতিতো পিছিয়ে যাবে। আর যারা হামলার সাথে জড়িত তারাওতো চায় এই অনুষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাক। নববর্ষের অনুষ্ঠানে সময় বেঁধে দিলেতো তাদের আরো প্রশ্রয় দেয়া হবে। একজন সাংস্কৃতিক কর্মী হিসেবে আমি এটা মেনে নিতে পারি না। আর এই কড়াকড়ি করতে গিয়ে আমরা এক ধরণের হেনস্তার শিকার হচ্ছি। ফলে এই ধরনের চাপের কারণে আমরা মুক্তমনা সংস্কৃতি চর্চাও করতেও ব্যর্থ হচ্ছি। এটা আমাদের জন্য দুঃখজনক এবং এর জন্য আমরা ক্ষোভ প্রকাশ করি। সরকারের বিষয়টি নিয়ে আরো ভাবা উচিত বলে মনে করি।

Share