নীড়পাতা » শেষের পাতা » হঠাৎ টোল বৃদ্ধি কালুরঘাট সেতুর

টেম্পো চলাচল বন্ধ, দুর্ভোগে যাত্রীরা

হঠাৎ টোল বৃদ্ধি কালুরঘাট সেতুর

নিজস্ব সংবাদদাতা , বোয়ালখালী

হঠাৎ কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বৃদ্ধি করা হয়েছে কালুরঘাট সেতুর টোল। এর বৃদ্ধির প্রতিবাদে পারাপার করছে না টেম্পো সার্ভিস। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে শহরে যাতায়াতকারীরা। গতকাল সোমবার সকাল থেকে টেম্পো শ্রমিক ইউনিয়ন টোল বৃদ্ধির প্রতিবাদে এ কর্মসূচি পালন করছে।
কালুরঘাট সেতুর টোল আদায়কারী ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম জানান, টেম্পো ৩০ থেকে ১০ টাকা বাড়িয়ে ৪০ টাকা ও ট্যাক্সি ১৫ থেকে ৫ টাকা বাড়িয়ে ২০ টাকা করা হয়েছে। এদিকে, ৩১ মার্চের মধ্যে কালুরঘাট সেতুর বর্ধিত টোল প্রত্যাহার করা না হলে কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন শ্রমিকেরা। গতকাল সোমবার বিকেলে চান্দগাঁও থানার বালুরটাল এলাকায় চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়ন-১৪৪১ এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানান।
শ্রমিক নেতা চান্দগাঁও থানা ইউনিয়নের সভাপতি আজিজুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ। প্রধান বক্তা ছিলেন ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক মো. বখতিয়ার। কাপ্তাই রাস্তার মাথা শাথার সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা আবুল কাশেম সরকার, মো. ইমরান হোসেন, মো. হাসান মোল্লাহ, মো. আজাদ, মো. শাহেদ রানা, বোয়ালখালী নেতা নুরুল আবছার, মো. ইদ্রিস, ভুট্টু হওলাদার, মো. হাসান, সাগর, জাফর, মামুন, মেহেদী প্রমুখ।
শ্রমিক নেতা হারুনুর রশীদ বলেছেন, চট্টগ্রাম কালুরঘাট সেতুর টোল হঠাৎ করেই বৃদ্ধি করায় শ্রমিকদের সাথে প্রতিনিয়ত হাতাহাতি ও মারামারি হচ্ছে। শ্রমিকদের উপর জুলুমের মতো করে টোল বৃদ্ধি করা হয়েছে। সারাদিনে প্রতিটি গাড়ি ৫ থেকে ১০ বার অনেক সময় ২০ বারেরও বেশী এই সেতু পার হতে হয়। যে হারে টোল বৃদ্ধি করা হয়েছে তাতে শ্রমিকদের সারাদিনের আয় রোজগার টোল দিতেই শেষ হয়ে যাবে। তিনি বলেন, শ্রমজীবি মানুষের উপর জুলুম কেউ সহ্য করবে না। এই টোল বৃদ্ধির মাধ্যমে শ্রমিকদেরকে আরেকদফা শোষণ করা হচ্ছে।
তিনি অবিলম্বে বর্ধিত টোল প্রত্যাহারের দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলেও ঘোষণা দেন।
চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক ও কভারভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক মো. বখতিয়ার বলেন, বর্ধিত টোল প্রত্যাহার করা না হলে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে।
আজিজুল হক বলেন, ৩১ মার্চের মধ্যে বর্ধিত টোল প্রত্যাহার করা না হলে ১ এপ্রিল কালুরঘাট সেতু প্রাঙ্গণে শ্রমিক মহাসমাবেশের মাধ্যমে এই টোল প্রত্যাহারে কর্তৃপক্ষকে বাধ্য করা হবে। তিনি আগামী ১লা এপ্রিল শ্রমিক মহাসমাবেশে যোগদানের জন্যও শ্রমিকদের প্রতি আহবান জানান।- বিজ্ঞপ্তি

Share
  • 5
    Shares