নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর গয়নার চর খালটি দীর্ঘদিন থেকে পরিস্কার না করায় ভরাট হয়ে গেছে অনেক আগেই। সরাইপাড়া এলাকার অংশে দীর্ঘদিন থেকেই ভরাট হয়ে পড়ে আছে খালটির একটি অংশ। দেখে মনেই হবে না এটি খাল। স্থানীয়রা বলছে, দীর্ঘদিন থেকেই পরিস্কার করা হয় না বলেই এখন খালটি স্বরূপ হারাতে বসেছে। আর বর্ষা মৌসূমে একটু বৃষ্টি হলেই সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। তবুও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোন নজর রাখে না। যেন দেখার কেউই নেই।
সরেজমিনে দেখা যায়, ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডস্থ পিসি রোডের পূর্ব পাশের কনকা সিএনজি স্টেশনের পেছনে ঘেঁষে খালটির অবস্থান। এটি পাহাড়তলী থেকে এসে হালিশহরে গিয়ে মিলেছে। ১৫ থেকে ২০ ফিট প্রশস্ত খালটির বেশ কয়েকটি অংশেই ময়লা ফেলার কারণে ভরাট হয়ে গেছে। এর মধ্যে পিসি রোডের হাজি আশরাফ আলী রোড, বঙ্গবন্ধু গলির পাশেই ঘেঁষে যাওয়া খালটি এখন ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। যার কারণে পানি চলাচলও সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।
খালের দুপাশেই হাজার হাজার মানুষের বসবাস। ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ চড়াচ্ছে এলাকাজুড়ে। যেন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশেই বসবাস করছে এলাকার হাজার মানুষ।
স্থানীয়রা জানান, গত সাত বছরে মাত্র দু’বার সিটি কর্পোরেশন থেকে খালটি পরিদর্শনে এসে পরিস্কারের নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এর পর খালের মুখ পরিস্কার করতে ভেকু মেশিন দিয়ে দুই বার চেষ্টা করলেও পরবর্তীতের পরিস্কার না করেই চলে যান পরিচ্ছন্ন কর্মীরা। এভাবেই দীর্ঘদিন থেকেই বিভিন্ন ময়লা আবর্জনায় ভরাট হয়ে আছে খালটি। খালে ময়লা থাকার কারণে চারদিকে যেমন দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে তেমনি মশা-মাছিরও উপদ্রব বেড়েছে। এসবের কারণে এলাকাজুড়ে রোগ জীবাণুও ছড়াচ্ছে বলে জানান স্থানীয়রা।
দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে বসবাস করা স্থানীয় বাসিন্দা মো. আব্দুল আলীম পূর্বকোণকে বলেন, ‘বর্ষা মৌসুমে খাল দিয়ে পানি চলাচল বন্ধ থাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এলাকাজুড়ে।
গত সাত বছরে সিটি কর্পোরেশন থেকে পরিদর্শনে এসে পরিস্কার কথা জানালেও আজ পর্যন্ত খালটি পরিস্কার করা হয়নি। আশ-পাশের বাসা বাড়ি ও বিভিন্ন কারখানার ময়লা-আবর্জনার স্তূপে খালটি এখন ভরাট হয়ে আছে। বর্তমানে দুর্গন্ধের কারণে খালের কাছে দিয়ে যাওয়া ও যায় না। দীর্ঘদিন থেকেই পরিস্কারের অভাবেই পড়ে আছে খালটি। যেন দেখার কেউই নেই। জনগণের স্বার্থে খালটি এখন দূষণমুক্ত করা উচিত’।

Share
  • 103
    Shares