আদালতে হাজির করা হলে কাঠগড়ায় ক্রাইস্টচার্চে হামলাকারী ব্রেন্টন ট্যারেন্টন হাতের আঙুল দিয়ে একটি চিহ্ন দেখিয়েছেন, যা ডযরঃব ংঁঢ়ৎবসধপরংঃ ড়ৎ ঢ়ড়বিৎ- ‘শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ব’ বর্ণবাদের প্রতীক বলে জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। বলা হচ্ছে, আদালতে ব্রেন্টন যেভাবে আঙুল রেখেছেন, সেভাবে রাখাটা হলো শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ব’র প্রতীক।-বাংলানিউজ
বৃদ্ধা ও তর্জনি আঙুল বৃত্তাকারে একসঙ্গে যুক্ত করলে ‘চ’ হয়, যা ঢ়ড়বিৎ। এসময় বাকি তিন আঙুল রূপ নেয় ড-এর। যা ডযরঃব. আর এভাবেই আঙুলগুলো রেখেছেন ২৮ বছর বয়সী এই অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, ব্রেন্টন আদালতে কোনো কথা বলেননি। শুনানির সময় মিডিয়া ব্যক্তিত্বরা যখন তার আলোকচিত্র তুলছিলেন, তখন তিনি হাসছিলেন এবং হাতের আঙুল দিয়ে ‘শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্বের (ডযরঃব ংঁঢ়ৎবসধপরংঃ ড়ৎ ঢ়ড়বিৎ)’ প্রতীক প্রদর্শন করছিলেন। তার বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দিয়ে গতকাল শনিবার সকালে (স্থানীয় সময়) তাকে আদালতে হাজির করা হয়। তখন আদালত আত্মপক্ষ সমর্থনে আনার জন্য কোনো আবেদন ছাড়াই পুলিশের হেফাজতে ব্রেন্টনকে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন। একইসঙ্গে মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয় আগামী ৫ এপ্রিল। এ দিন দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের উচ্চ আদালতে তাকে হাজির করা হবে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইন লঙ্ঘনসহ আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হবে বলে ধারণা করছেন আইনপ্রণেতারা।
বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলার সন্দেহভাজন মূলহোতাকে আদালতে হাজিরের সময় হাতকড়া পরানো ছিল। তার পরনে ছিল কারাগারের শার্ট। তার দু’পাশে দু’জন পুলিশ সদস্য ছিলেন সতর্কতা অবলম্বন করে। গতকাল শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টার দিকে ক্রাইস্টচার্চে ডিনস অ্যাভ মসজিদ ও লিনউড মসজিদে এবং আরেকটি স্থানে এ হামলা হয়। এতে ৪৯ জন নিহত হন। এদের মধ্যে তিন বাংলাদেশিও রয়েছেন। আহতদের মধ্যেও একাধিক বাংলাদেশি আছেন। তবে বর্বরোচিত হামলা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে যান দেশটিতে সফররত বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

Share
  • 36
    Shares