নীড়পাতা » শেষের পাতা » ভোক্তার অধিকার আইন ও দ-

ভোক্তার অধিকার আইন ও দ-

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ এ বলা আছে, জাতিসংঘ স্বীকৃত ভোক্তা অধিকার আটটি। তা হল, মৌলিক চাহিদা পূরণের অধিকার। তথ্য পাওয়ার অধিকার। নিরাপদ পণ্য বা সেবা পাওয়ার অধিকার। পছন্দের অধিকার। জানার অধিকার। অভিযোগ করা ও প্রতিকার পাওয়ার অধিকার। ভোক্তা অধিকার ও দায়িত্ব সম্পর্কে শিক্ষা লাভের অধিকার এবং সুস্থ পরিবেশের অধিকার।
দ- : পণ্যের মোড়ক ইত্যাদি ব্যবহার না

করা, মূল্যের তালিকা প্রদর্শন না করা এবং সেবার মূল্যের তালিকা সংরক্ষণ ও প্রদর্শন না করা এবং ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য, ওষুধ বা সেবা বিক্রয় প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করা, বাটখারা বা ওজন পরিমাপক যন্ত্রে কারচুপি, পরিমাপে কারচুপি, দৈর্ঘ্য পরিমাপের কাজে ব্যবহৃত পরিমাপক ফিতাতে কারচুপি, মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বা ওষুধ বিক্রয় করলে অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদ- বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দ-। ভেজাল পণ্য বা ওষুধ বিক্রয় এবং খাদ্য পণ্যে নিষিদ্ধ দ্রব্যের মিশ্রণ, পণ্যের নকল প্রস্তুত বা উৎপাদন, সেবা গ্রহীতার জীবন বা নিরাপত্তা বিপন্নকারী কাজ, অবহেলা ইত্যাদি দ্বারা সেবা গ্রহীতার অর্থ, স্বাস্থ্য, জীবনহানি ইত্যাদি ঘটালে অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদ- বা অনধিক দুই লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দ- হতে পারে। অবৈধ প্রক্রিয়ায় পণ্য উৎপাদন বা প্রক্রিয়াকরণের জন্য দুই বছর কারাদ- বা অনধিক এক লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দ- হতে পারে। মিথ্যা বা হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করলে অনূর্ধ্ব তিন বছরের কারাদ- বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দ- হতে পারে। অপরাধ পুনঃসংঘটন করলে সংশ্লিষ্ট অপরাধের জন্য নির্ধারিত সর্বোচ্চ দ-ের দ্বিগুণ দ- হতে পারে। কোন ভোক্তার দায়েরকৃত আমলযোগ্য অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত ও জরিমানা আরোপ করা হলে আদায়কৃত জরিমানার ২৫ শতাংশ তাৎক্ষণিকভাবে অভিযোগকারকে প্রদান করা হয়।

Share