প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসনে বোয়ালখালীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের এক মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্ঠান গতকাল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি বোয়ালখালী উপজেলা শাখার আয়োজনে উপজেলা পরিষদের সামনে অনুুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মো. শওকত হোসেন। সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফারুক ইসলামের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক উত্তম বিশ^াস, শিক্ষক ধীমান দাশ, মো. ওসমান, সৈয়দুর রহমান, মো. সোহেল, সোমনাথ চৌধুরী, প্রণব মজুমদার, জয়তু মল্লিক, রুপন দাশ, প্রণয় বড়–য়া, কানন বড়–য়া, আশুতোষ দাশ, শান্তনু চৌধুরী, মো. ফারুক প্রমুখ। বক্তারা বলেন, প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড প্রদানের ফলে সহকারী আর প্রধান শিক্ষকদের মধ্যে বেতন বৈষম্য আরো বেড়ে যাবে। তাই প্রধান শিক্ষকদের পরের ধাপে অর্থাৎ ১১তম গ্রেডে সহকারী শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণের জন্য শিক্ষকবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন। মানববন্ধন শেষে সহকারী শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বেতন বৈষম্য নিরসনে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) একরামুল ছিদ্দিক।
এদিকে পটিয়া সংবাদদাতা জানান, সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন প্রদানের দাবিতে পটিয়া পিটিআইয়ে প্রশিক্ষণরত সহকারী শিক্ষকদের উদ্যোগে পিটিআই প্রাঙ্গণে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে কর্মসূচি পরিষদের আহবায়ক হিরো সিকদারের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব হেলাল উদ্দিনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি উপজেলা সহকারী শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিল মোহাম্মদ সানি। বক্তব্য রাখেন প্রশিক্ষণার্থী রফিকুল ইসলাম, টুম্পা রায়, জিল্লুর রহমান, সুমন দাশ, সুজন দেব, সজল বড়–য়া, সঞ্জয় শীল, হাসান মুনির, তসলিমা আকতার, নাছির উদ্দিন, সনজয় দাশ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের মধ্যে প্রধান শিক্ষক ১০তম গ্রেডে এবং সহকারী শিক্ষকেরা ১৪/১৫ তম গ্রেডে বেতন পাচ্ছে। তাই প্রধান শিক্ষকের পরপর সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন প্রদানের দাবি জানান তারা।

Share