স্পোর্টস ডেস্ক

সাব্বির হোসেন ও শরিফুল ইসলামের দারুণ বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারল না শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাবের ব্যাটসম্যানরা। জিয়াউর রহমানের দৃঢ়তায় কোনোমতে একশ ছাড়াল তারা। সেই রান নিয়েই ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে দলকে অবিশ্বাস্য এক জয় এনে দিলেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার। তার ও সালাউদ্দিন শাকিলের বোলিং তোপে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে হারিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম জয় পেয়েছে শেখ জামাল। তৃতীয় রাউন্ডের রোমাঞ্চকর ম্যাচে ১২ রানের নাটকীয় জয় পেয়েছে নুরুল হাসান সোহানের দল। ১০৭ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ২৯ ওভারে ৯৪ রানে গুটিয়ে যায় শাইনপুকুর। অলরাউন্ডার জিয়া দুটি করে ছক্কা-চারে ৫৮ বলে করেন ৪১ রান। পরে বল হাতে ২৩ রানে ৫ উইকেট নেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে তার আগের সেরা ছিল ২৩/৫। ছন্দে আবাহনীও। মাশরাফি বিন মুর্তজার সরব উপস্থিতিতে দলটি যেন আরও চাঙা হয়ে উঠেছে। তার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিপক্ষে ১৪ রানের জয় পেয়েছে আবাহনী। শান্ত ৭২ বলে ৪৪ ও মোসাদ্দেক ৯৫ বলে ৫৪ রান করেন। পরে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মাশরাফি বিন মুর্তজার
৩২ বলে ৬২ রানের পার্টনারশিপে ২৩৬ রানে থামে আবাহনী। ১৫ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন মাশরাফি। ৪টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৪৫ বলে ৫৯ রান করে অপরাজিত থাকেন সাইফ। রান তাড়ায় ব্রাদার্স ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২২২ রানে থামতে বাধ্য হয়। লড়াই করেছিলেন ইয়াসির।
ধতবে অন্যদের ব্যর্থতায় পরাজিতের দলেই থাকতে হলো তাকে। ১১২ বলের মোকাবেলায় ৮টি চার ও ২টি ছক্কায় ১০৬ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন ইয়াসির। দিনের আরেক ম্যাচে এনামুল হকে শতকে রূপগঞ্জকে হারায় প্রাইম ব্যাংক।

Share