সপ্তাহের ব্যবধানে ৮৪ টাকা ১২ পয়সাতে পৌঁছেছে ডলারের দাম। এক সপ্তাহ আগেও দাম ছিল ৮৩ টাকা ৯৫ পয়সা। গত সাত দিনে দুই দফায় ১৭ পয়সা বেড়েছে ডলারের দর।বাংলাদেশ ব্যাংকের সূত্রমতে, গত ১২ ফেব্রুয়ারি আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলারের দাম ছিল ৮৩ টাকা ৯৫ পয়সা। ১৩ ফেব্রুয়ারি ৭ পয়সা বেড়ে ৮৪ টাকা ০৫ পয়সাতে পৌঁছায়। ১৪ ফেব্রুয়ারি ৫ পয়সা এবং সর্বেশেষ ১৭ তারিখে ২ পয়সা বৃদ্ধি পেয়ে ৮৪ টাকা ১২ পয়সাতে অবস্থান করছে ডলার। এক বছর আগের একই দিনে প্রতি ডলারের দর ছিল ৮২ টাকা ৯৪ পয়সা। আর দু’বছর আগে ছিল ৭৯ টাকা ৮৩ পয়সা। সংশ্নিষ্টরা বলছেন, বিদেশি ঋণের সুদহার এখন ঊর্ধমুখী। সুদসহ বিদেশি ঋণ পরিশোধের একটা চাপ রয়েছে। আবার গত অর্থবছরের ব্যাপক আমদানির পর এবারও আমদানি বাড়ছে। চলতি অর্থবছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬ মাসে তিন হাজার ৭ কোটি ডলারের আমদানি ব্যয় হয়েছে। বর্তমানের এ আমদানি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৫ দশমিক ৭৩ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছর আমদানি বেড়েছিল ২৫ দশমিক ২৩ শতাংশ। আর ডিসেম্বর পর্যন্ত রপ্তানি আয় এসেছে ২ হাজার ৫০ কোটি ডলার। রেমিট্যান্স এসেছে ৭৪৯ কোটি ডলারের। এদিকে বাজার স্বাভাবিক রাখতে প্রচুর ডলার বিক্রি করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। চলতি অর্থবছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিক্রি করা হয়েছে প্রায় ১৫৪ কোটি ৭০ লাখ ডলার। গত অর্থবছর বিক্রি করা হয় ২৩১ কোটি ১০ লাখ ডলার। এরপরও থেমে থেমে বাড়ছে ডলারের দর। এর আগে গত ২ জানুয়ারি থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ডলার ৮৩ টাকা ৯৫ পয়সায় স্থিতিশীল ছিল। এ পরিস্থিতিতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আর বাড়ছে না। বর্তমানে রিজার্ভের পরিমাণ ৩ হাজার ১৫৬ কোটি ডলার।ৎ

Share