নিজস্ব সংবাদদাতা , হাটহাজারী

কাদিয়ানীদের ২২, ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ইজতেমা সরকার বন্ধ না করলে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ পঞ্চগড় অভিমুখে লংমার্চসহ আরো কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা দিতে বাধ্য হবে জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লাম শফী। গতকাল বুধবার দারুল ঊলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসাস্থ হেফাজত আমিরের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আল্লামা শফী বলেন, ‘কাদিয়ানীরা মুসলিম নয়’। যারা কাদিয়ানীদের মুসলমান বলবে তারাও বেঈমান। তাদের ঈমান থাকবে না। সরকারের প্রতি কাদিয়ানীদের ইজতেমা বন্ধ ও সরকারিভাবে তাদের অমুসলিম ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।’ সংবাদ সম্মেলনে হেফাজত মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন কাদিয়ানিরা শুধু ইসলামের শত্রু নয়, দেশের সার্বভৌমত্বের জন্যও হুমকি স্বরূপ। কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের সাথে মুসলিম সমাজের বিরোধ হানাফী-শাফেয়ী বা হানাফী-আহলে হাদীস অথবা সুন্নী-বেদআতীদের মতবিরোধের মত নয়, বরং তাদের সাথে মুসলমানদের বিরোধ এমন কিছু মৌলিক আকীদা নিয়ে, যা বিশ্বাস করা-না করার উপর মানুষের ঈমান থাকা-না থাকা নির্ভর করে। কাদিয়ানীরা ইসলামধর্মের অনেক মৌলিক আকীদা অস্বীকার করার কারণে নিঃসন্দেহে অমুসলিম ও কাফের। বরং যে ব্যক্তি (তাদের কুফরী বিষয়গুলো জানার পরও) তাদের কাফের মনে করবে না বা এতে সন্দেহ পোষণ করবে, সেও নিঃসন্দেহে কাফের।
সংবাদ সম্মেলনে আহমদ শাহ আহমদ শফীর লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, আমির পুত্র হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা আনাস মাদানী। সংবাদ সম্মেলনে হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব লোকমান হাকিম, মাওলানা সলিমুল্লাহ, মাওলানা নোমান, মাওলানা মাওলানা মঈনুদ্দিন রুহী, সদস্য মাওলানা নুরুল ইসলাম, মাহমুদ হাসান ফতেপুরী, মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, আশ্রাফ আলী নিজামপুরী, নাছির উদ্দিন মুনির, সরওয়ার আলম প্রমুখ।

Share