শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি বলেন, সেবা ও মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত সৎসঙ্গ। মানুষকে আপন করে তুলতে সৎসঙ্গের শিক্ষা অনুকরণীয়। ঠাকুর অনুকূলচন্দ্রের জীবন দর্শন মানুষকে সৎপথে পরিচালিত হতে অনুপ্রাণিত করে। গত ৯ ফেব্রুয়ারি ঠাকুর অনুকূলচন্দ্রের ১৩১তম বিভাগীয় জন্মমহোৎসব উপলক্ষে সৎসঙ্গ বিহার চট্টগ্রাম আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এরআগে অনুষ্ঠানে বিভিন্ন আলোচক সৎসঙ্গ বিহারের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানের কথা তুলে ধরেন। সংসদ সদস্য নওফেল বলেন, প্রধানমন্ত্রী এই সৎসঙ্গ বিহারের উন্নয়নে এগিয়ে এসেছেন। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে এগিয়ে আসতে হবে। অধ্যাপিকা মৃনালিনী চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে মাতৃসম্মেলেনে বক্তব্য রাখেন সিএমপি অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম, উপ-কমিশনার বিজয় বসাক, বাকলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রণব চৌধুরী, অধ্যক্ষ ছন্দা চক্রবর্ত্তী, উমাশ্রী ভট্টাচার্য, কল্পনা রায় ও অধ্যাপিকা তাসকিয়াতুন নূর তানিয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিনিয়র ফটো সাংবাদিক সুমন দাশ। পরে দুপুরে আয়োজিত সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, এই দেশটি আমাদের সকলের। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। এদেশে সাম্প্রদায়িকতার কোনো স্থান নেই। সৎসঙ্গ বাংলাদেশের সহ-সম্পাদক সুব্রত আদিত্য এসপিআর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারত হতে আগত অধ্যাপক শংকর কুমার মন্ডল, শিব প্রসাদ রানা ও সঞ্জীব পাত্র। সাধারণ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক প্রদীপ কুমার দেব, তিমির সেন, আশীষ চৌধুরী, দীপংকর ভট্টাচার্য, মাধব দত্ত, অধ্যাপক শুভাশীষ দাশ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র ও তপোবন বিদ্যা নিকেতনের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন। এছাড়া অতিথিবৃন্দ বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, হস্ত ও কুটির শিল্প প্রকল্প ও সৎসঙ্গ হোমিওপ্যাথিক দাতব্য চিকিৎসালয়ের কার্যালয় পরিদর্শন করেন। শুক্রবার অনুষ্ঠানে ভারত হতে আগত বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী সঞ্জীব পাত্র ঠাকুরের ছড়াগান পরিবেশন করেন।-বিজ্ঞপ্তি

Share