বোধন আবৃত্তি পরিষদ চট্টগ্রাম গত বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় নগরীর চেরাগী পাহাড়স্থ সুপ্রভাত স্টুডিও হলে এক সুধী সমাবেশের আয়োজন করে।
আবৃত্তিশিল্পী পারভেজ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সাংগঠনিক সিদ্ধান্তসমূহ তুলে ধরেন বোধনের স্থায়ী পরিষদ সদস্য প্রশান্ত চক্রবর্ত্তী। উল্লেখ্য গত বুধবার বিকেলে বোধনের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণ পর্ষদ স্থায়ী পরিষদের এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় গত ১৫ ডিসেম্বর বোধন আয়োজিত অনুষ্ঠানে সংগঠনের চিন্তা চেতনার সাথে সাংঘর্ষিক আবৃত্তি পরিবেশন করায় তিনজনকে বহিষ্কার করা হয় এবং সংগঠনের স্বার্থবিরোধী কার্যক্রমে লিপ্ত থাকার কারণে আরও একজনকে বহিষ্কার করা হয়। স্থায়ী পরিষদের সভায় বোধনের নির্বাহী কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে আবদুল হালিম দোভাষকে আহ্বায়ক, এডভোকেট সুভাষ বরণ চক্রবর্ত্তীকে সদস্য সচিব ও এড. নারায়ণ প্রসাদ বিশ্বাসকে যুগ্ম সদস্য সচিব করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। আহ্বায়ক কমিটি পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়া পর্যন্ত বোধনের কার্যক্রম পরিচালনা করবে। সুধী সমাবেশে বক্তারা বলেন, কিছু স্বার্থান্বেষী ও কুচক্রীর হীন অপচেষ্টায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ বোধনের মত একটি স্বাধীনতার স্বপক্ষের প্রগতিশীল সংগঠনকে হেয় ও প্রশ্নবিদ্ধ করা যাবে না। বোধন জন্মলগ্ন থেকেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে লালন করে পথ চলছে।
বোধনের এই পথচলায় আমরা পাশে ছিলাম এবং আগামীতেও পাশে থাকব। বক্তারা বোধনের নাম ব্যবহার করে অন্য কেউ যেন সংগঠন পরিচালনা করতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ডা. চন্দন দাশ, ড. কুন্তল বড়–য়া, কবি আশীষ সেন, প্রকৌশলী রথীন সেন, অধ্যাপিকা রোজী সেন, সাইফুল আলম বাবু, মো. শাহ আলম, আবৃত্তি শিল্পী অঞ্চল চৌধুরী, অধ্যাপিকা শীলা দাশ গুপ্তা, সঙ্গীতশিল্পী দীপেন চৌধুরী, শ্রেয়সী রায়, স্বপন কুমার দাশ, নাট্যজন দেবাশীষ রায়, স্বপন মজুমদার, আবৃত্তিশিল্পী মিলি চৌধুরী, ফারুক তাহের, মুজাহিদুল ইসলাম, আলোকচিত্রী কমল রুদ্র প্রমুখ। -বিজ্ঞপ্তি

Share