নীড়পাতা » প্রথম পাতা » এবার মেট্রোরেলে চোখ সিডিএর

চায়না কোম্পানির সাথে বৈঠক

এবার মেট্রোরেলে চোখ সিডিএর

ইমরান বিন ছবুর

চট্টগ্রাম মহানগরীতে মেট্রোরেল চালুর উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। চায়না রেলওয়ে ডিজাইন কর্পোরেশনের সাথে গত মঙ্গলবার সিডিএ কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক হয়েছে। সিডিএ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে চীনা কোম্পানি চট্টগ্রাম মহানগরীতে মেট্রোরেল চালুতে কোন সমস্যা নেই বলে জানিয়েছে। এ প্রসঙ্গে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম জানান, ফ্লাইওভারের কাজ শেষ করে বর্তমানে মেট্রোরেলের জন্য চিন্তা করছি। গত মঙ্গলবার চায়না একটা কোম্পানির সাথে কথা বলেছি। তাদেরকে নগরীতে মেট্রোরেলের সম্ভাব্যতা যাচাই করার জন্য বলা হয়েছে। তারা বলেছে ফ্লাইওভারের জন্য কোনো সমস্যা হবে না। আন্ডারগ্রাউন্ড বা ওপরে যেখানেই মেট্রোরেল করা হউক না কেন, ফ্লাইওভারের কারণে কোনো সমস্যা হবে না।
তিনি আরো জানান, আমি প্রথমে ফ্লাইওভার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি। এর কারণ হচ্ছে, আমরা যদি এখন বন্দরকে ফ্রি রাখতে না পারি তাহলে বন্দর কার্যক্রমে ধস নামবে। তাই ফ্লাইওভার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি। আগামীতে বন্দরের কর্মকা- পাঁচগুণ বেড়ে যাবে। আর উন্নয়ন তো বললেই হয় না, এরজন্য সময়ের প্রয়োজন রয়েছে। তাই ফ্লাইওভার নির্মাণের পর এখন মেট্রোরেল নিয়ে ভাবছি আমরা।
সিডিএ কর্তৃপক্ষ আগে কেন মেট্রোরেলের উদ্যোগ গ্রহণ না করে ফ্লাইওভার তৈরি করেছে – প্রশ্নের উত্তরে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সাথে দেশের অন্যান্য জেলার সাথে পার্থক্য রয়েছে। চট্টগ্রাম যেহেতু বন্দর নগরী, তাই চট্টগ্রামের আলাদা বৈশিষ্ট্য আছে। বন্দর নগরীতে যত অবকাঠামো উন্নয়ন হবে, সবগুলো হতে হবে বহুমুখী উদ্দেশ্যে। শুধুমাত্র একটা উদ্দেশ্য নিয়ে উন্নয়ন করলে হবে না। মেট্রোরেল শুধুমাত্র পাবলিকের যাতায়াতের জন্য। কিন্তু ফ্লাইওভার তৈরি করা হয়েছে মাল্টি পারপাসের জন্য। ফ্লাইওভারে কার্গো থেকে শুরু করে টেইলর, কাভার্ডভ্যান, ট্রাক, লরি, বাস, মাইক্রোবাস, কার সিএনজি ট্যাক্সি সব চলবে। বর্তমান সময়ে আমাদের ফ্লাইওভার খুব প্রয়োজন ছিল। তবে আমি মেট্রোরেলের প্রয়োজন নেই বলবো না।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, সিআরডিসি’র প্রজেক্ট ম্যানেজার জোহাং ইয়াং, মজুমদার এন্টারপ্রাইজ কার্যনির্বাহী পরিচালক (এডমিন ও বিজনেস ডেভেলপমেন্ট) মো. সাব্বির হাসান, সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস প্রমুখ।

Share
  • 3
    Shares