নিজস্ব প্রতিবেদক

কোতোয়ালী মোড়ে কাভার্ডভ্যানের চাপায় সিটি কলেজের একাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। নিহত ছাত্রীর নাম সোমা বড়–য়া (১৮)। তিনি নগরীর চান্দগাঁও থানাধীন বাহির সিগন্যাল বড়–য়া পাড়া এলাকার রূপায়ন বড়–য়া ও কুমকুম বড়–য়ার মেয়ে। সোমার গ্রামের বাড়ি বোয়ালখালী উপজেলায়। কলেজে যাওয়ার জন্য বাস থেকে নেমে রাস্তা পার হতেই একটি দ্রুতগতির কাভার্ডভ্যান চাপা দিলে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান সোমা। গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কোতোয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সজল দাশ জানান, এ ঘটনায় জড়িত কাভার্ডভ্যান ও চালক জসিম উদ্দীনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহতের স্বজনরা জানান, সংসারের অবস্থা তেমন ভালো না হওয়ায় এইচএসসি পরীক্ষা শেষ করেই পরিবারের হাল ধরার ইচ্ছা ছিল সোমার। বাড়ির সবার প্রিয় ছিলেন তিনি। ছোটবেলা থেকে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতেন সোমা। কারো সাথে খারাপ আচরণ করতেন না। সবসময় সবার মন জয় করার চেষ্টা করতেন।
স্বজনরা আরো জানান, সোমা বড়–য়ার মা কুমকুম বড়–য়া বোয়ালখালীর একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এমএলএস হিসাবে কাজ করে সংসার চালান। পিতা রূপায়ন বড়–য়া মানসিক রোগী হওয়ায় সংসারের একমাত্র উপার্জনকারী কুমকুম বড়ুয়া। চাকরি করে বড় দুই মেয়েকে এইচএসসি পর্যন্ত লেখাপড়া করিয়ে বিয়ে দিয়েছেন। ছোট মেয়ে সোমাকে নিয়ে অনেক আশা ছিল পরিবারের সদস্যদের।
চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, ময়না তদন্ত ছাড়া নিহত কলেজছাত্রী সোমা বড়–য়ার (১৮) মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
এদিকে সোমার সহপাঠীরা নগরীতে দিনের বেলায় ট্রাক-কাভার্ডভ্যান চলাচল বন্ধে আইন কার্যকর করার জন্য চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বরাবর স্মারকলিপি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Share
  • 254
    Shares