নিজস্ব প্রতিবেদক , ঢাকা অফিস

নতুন মন্ত্রিসভার পর আগামী কয়েকদিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা পরিষদেও পরিবর্তন আসতে চলেছে বলে জানা গেছে। প্রভাবশালী এক সূত্রের খবর- বর্তমান উপদেষ্টাম-লীর কেউ বাদ পড়বেন কিনা সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত না হলেও নতুন কয়েকজনকে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে শিগগির। সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী তার উপদেষ্টা পরিষদের মধ্যে যাদের কার্যক্রম বা ভূমিকা দৃশ্যমান হয়নি তাদের জায়গায় নতুন উপদেষ্টা নিয়োগ করতে পারেন। তবে, পুরনোদের মধ্যে একজনকে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী করার চিন্তা ভাবনা চলছে বলে জানায় এ সূত্র।
নতুন করে যারা উপদেষ্টা পরিষদে অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন বলে ধারনা করা হচ্ছে- তাদের মধ্যে ব্যবসায়ী নেতা ও সাংসদ সালমান এফ রহমান অন্যতম। তিনি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা পদে বর্তমানে রয়েছেন। এবার তিনি ঢাকা -১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তাকে প্রধানমন্ত্রীর শিল্প বিষয়ক উপদেষ্টা করা হতে পারে বলে একাধিক সূত্র আভাস দিয়েছে।
এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদকে উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। এটা যদি করা হয়, তাহলে তার পদোন্নতি হবে। তিনি এসডিজি বিষয়ক সমন্বয়কারী হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বর্তমানে কাজ করছেন। এছাড়া রয়েছেন ডা. প্রাণগোপাল দত্ত। তিনি কুমিল্লার একটি আসন থেকে মনোনয়ন চেয়েও পাননি। এর আগে ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। দুই মেয়াদে তিনি উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করেন। তাকে প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যবিষয়ক উপদেষ্টা করার চিন্তাভাবনা চলছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।
উল্লেখ্য আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে প্রথমবারের মত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু দ্বিতীয় মেয়াদে ২০০৮ সালে সরকার গঠনের সময় প্রধানমন্ত্রী একটি শক্তিশালী উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করেন। সেই উপদেষ্টা পরিষদে এইচ.টি ইমাম, ড. আলাউদ্দীন আহমেদ, সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, ড. মশিউর রহমান, ড. গওহর রিজভী, তৌফিক এলাহিসহ স্ব-স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের তিনি উপদেষ্টা হিসেবে নিয়ে আসেন। পরে দ্বিতীয় দফায় ২০১৪ সালেও আওয়ামী লীগ ক্ষমতা গ্রহণের পর উপদেষ্টা পরিষদের তেমন কোন পরিবর্তন হয়নি। অধ্যাপক মোদাচ্ছের আলী এবং আলাউদ্দীন আহমেদকে উপদেষ্টা পরিষদ থেকে বাদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর তনয় সজীব ওয়াজেদ জয় ও ইকবাল সোবহান চৌধুরীকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।

Share
  • 303
    Shares