নাগরিক জীবনের দু:খ, কষ্ট, হতাশা দূরে সরিয়ে অনেকেরই স্বপ্ন থাকে সমুদ্র স্নানে যাওয়ার। আর নিদেনপক্ষে জীবনে একবার হলেও ইচ্ছা থাকে সমুদ্র দেখার। কিন্তু এই আধুনিক যুগে এসে মানুষ সমুদ্রে ঘর বানিয়ে থাকার চিন্তা করেছে, সেই ভাবনা আবার বাস্তবও হতে চলেছে।ওশেনিয়ার ফ্রেঞ্চ পলেনেশিয়ার পাশে বিশ্বের প্রথম ভাসমান শহর তৈরির পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ২০২০ সালে পরিকল্পনাটি সম্পন্ন হবার কথা রয়েছে। শহরটিতে মানুষ বাস করতে পারবে প্রায় তিনশো। আর এটি নির্মাণে খরচ হবে আনুমানিক সতের কোটি ডলার। ভাসমান শহর এমনভাবেই তৈরি করা হবে যেন এখানকার নাগরিকদের জীবিকা বা অন্যান্য সুবিধার জন্য মূল ভুখ-ে ফিরে যেতে না হয়। ব্লুু ফ্রন্টিয়ারস নামের একটি প্রতিষ্ঠানটি ভাসমান শহরটি বাস্তবায়নে কাজ করছে। তাদের মতে, অদুর ভবিষ্যতে এই ধারণাটি খুবই জনপ্রিয় হবে। এক একটি ভাসমান শহর হবে এক একটি আলাদা প্রদেশ। আর প্রথম শহরটি অর্থনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হবে। ভাসমান শহরের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ চলছে বলেও জানা যায়। আশা করা হচ্ছে আগামী বছরের প্রথম থেকেই ভাসমান শহরের কাজ শুরু হবে।

Share
  • 43
    Shares