নিজস্ব প্রতিবেদক

আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের জিইসি র‌্যাম্প উদ্বোধনের তিন মাসের মাথায় রেলিং-এর স্টিলপাইপ উধাও হয়ে গেছে। গত ২০ জুলাই ফ্লাইওভারের জিইসি র‌্যাম্পটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। ফলে বহদ্দারহাট ও বায়েজিদ থেকে জিইিসিমুখী যানবাহনগুলো কোনো যানজট ছাড়াই ফ্লাইওভার হয়ে সহজেই পৌঁছে যাচ্ছে জিইসি। ফ্লাইওভারের জিইসি অংশের রেলিং থেকে স্টিলের পাইপ কেটে নিয়ে যাচ্ছে দুর্বৃত্তরা। বহদ্দারহাট এমএ মান্নান ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের রেলিং থেকে আগেও একাধিকবার এই এসএস পাইপ কেটে নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে সিডিএ কর্তৃপক্ষ।
এ প্রসঙ্গে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘ফ্লাইওভার তো জনগণের জন্য। এই ফ্লাইওভার ব্যবহার করে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ যানজট থেকে রক্ষা পাচ্ছে। কিছু দুর্বৃত্ত ফ্লাইওভারের ক্ষতি করে রেলিং-এর পাইপ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও বহদ্দারহাট থেকেও একাধিকবার রেলিং-এর পাইপ কেটে নিয়ে গেছে। পরে আমরা সেগুলো আবার লাগিয়ে দিয়েছি।’
তিনি আরো বলেন, ফ্লাইওভার তো আর পাহারা দিয়ে রাখার জিনিস না। জনগণের ভালোমন্দ তো জনগণকেই দেখতে হবে। কেউ যদি না বুঝে নিজের ক্ষতি নিজে করে তাহলে কি করার আছে ? তারপরও আমরা দেখবো, যাতে ভবিষ্যতে এ কাজ কেউ করতে না পারে।’
আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের প্রকল্প পরিচালক মো. মাহাফুজুর রহমান বলেন, ফ্লাইওভারের কাজ চলা অবস্থায় অনেক দুর্বৃত্ত চুরি করার জন্য সুযোগের অপেক্ষায় থাকে। নির্মাণাধীন র‌্যাম্প থেকে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন জিনিস চুরি করছে দুর্বৃত্তরা। ফ্লাইওভারের রেলিং-এর এসএস পাইপগুলো একটার সাথে একটা কানেক্টেড। তারপরও তা কেটে চুরি করে নিয়ে গেছে। একপর্যায়ে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এই পাইপ কি কেউ চুরি করে ?
তিনি আরো বলেন, ফ্লাইওভারের কাজ সম্পন্ন হলে আমরা প্রশাসনের সাথে বসবো, এ চুরি বন্ধ করার জন্য যা করা প্রয়োজন তাই করবো। চলতি মাসের ২২ নভেম্বর ফ্লাইওভারে উঠার জিইসি র‌্যাম্পটি উদ্বোধন করার পরিকল্পনা রয়েছে। এই র‌্যাম্পটির কাজ সম্পূর্ণ শেষ হওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Share
  • 14K
    Shares