বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ম-লীর সদস্য, বিশিষ্ট সমাজ বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, আব্দুল্লাহ আল হারুন চৌধুরীদের মত সাহসী-সহযোগী পেয়েছিলেন বলেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার ঐতিহাসিক ৬দফা ঘোষণার মধ্যদিয়ে ধারাবাহিকভাবে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বিশ্ব মানচিত্রে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছিলেন। তিনি বলেন আব্দুল্লাহ আল হারুন কোন ব্যক্তি বিশেষ ছিলেন না, তিনি ছিলেন একটি ইতিহাস। ৫২ ভাষা আন্দোলন, ৬৬ ছয় দফা, সর্বোপরি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধসহ এদেশের প্রতিটি প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামে আব্দুল্লাহ আল হারুন সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিলেন। আজকের দিনে তাঁরমত আদর্শিক নেতার বড়ই প্রয়োজন ছিল। তাঁর পথ অনুসরণ করে বর্তমান প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি আধুনিক সমৃদ্ধিশালী দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি গতকাল জেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট রাজনৈতিক সহচর, ভাষা সৈনিক সাবেক গণপরিষদ সদস্য আবদুল্লাহ আল-হারুনের ১৪ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালামের সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর মেয়র দেবাশীষ পালিতের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহসভাপতি অধ্যাপক মো. মঈনুদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ গিয়াস উদ্দিন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শেখ শফিউল আজম, এটিম পেয়ারুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ ও রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল এবং মরহুমের কন্যা, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা। সভার প্রারম্ভে মরহুমের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।-বিজ্ঞপ্তি

Share