হাতে হাতে ছড়িয়ে পড়া ইন্টারনেটকেন্দ্রিক বিকৃত আবেদনময়ী সাইবার ক্রাইম আগ্রাসন ঠেকিয়ে সম্ভাবনাময়ী যুব তরুণদের আদর্শিক পতন রোধে জাতীয় পদক্ষেপ গ্রহণের ডাক দিয়ে হিজরি বর্ষ ১৪৪০-কে বরণ করে নেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে কলুষতা, অসুন্দর ও জীর্ণতা ঝেড়ে ফেলে সম্প্রীতিপূর্ণ মানবিক বিশ্ব সমাজ প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ে হিজরি বছর ১৪৩৯ কে বিদায় জানানো হয়েছে। দেশাত্মবোধক, হামদ, নাতে রাসূল (দ), গজল, কাউয়ালি, মাইজভা-ারী সঙ্গীতসহ উজ্জীবনধর্মী নানা সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে হিজরি নতুন বছর বরণ করে নেন বিভিন্ন ইসলামী সাংস্কৃতিক সংগঠনের শায়ের ও শিল্পীরা । গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে হিজরি নববর্ষ উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে নগরীর লালদিঘি মাঠে হিজরি বর্ষবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানে বক্তারা জাতীয় চেতনাম-িত সুস্থ ধারার নির্মল সংস্কৃতির বিকাশ ঘটিয়ে অপসংস্কৃতিচর্চ্চা পরিহার করার আহ্বান জানান। হিজরি নববর্ষ উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান পীরজাদা মাওলানা মুহাম্মদ গোলামুর রহমান আশরফ শাহ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথি ছিলেন পিএইচপি ফ্যামেলির চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। উদ্বোধক ছিলেন আনজুমান রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা এম এ মান্নান। মুখ্য আলোচক ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব গবেষক-সংগঠক এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের মহাসচিব মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী। বিশেষ অতিথি ছিলেন আবু সুফিয়ান খান আবেদী আলকাদেরী, শাহ মাওলানা নূর মুহাম্মদ আলকাদেরী, অধ্যক্ষ মাওলানা বদিউল আলম রেজভী, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবু তালেব বেলাল, মাওলানা মুহাম্মদ রেজাউল করিম তালুকদার, অধ্যাপক জালাল উদ্দিন আজহারী, ব্যাংকার মুহাম্মদ আজিম উদ্দিন। আলোচক ছিলেন আবু নাছের মুহাম্মদ তৈয়ব আলী, নাছির উদ্দিন মাহমুদ, মাওলানা ইয়াছিন হোসাইন হায়দরী, কাজী মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম, আ ব ম খোরশিদ আলম খান, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আকতার হোসেন, হাফেজ মুহাম্মদ মঞ্জুরুল আনোয়ার চৌধুরী, মঈনুল আলম চৌধুরী, মুহাম্মদ সেকান্দর আলম চৌধুরী প্রমুখ।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন ও যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মুহাম্মদ আবু আজম। প্রধান অতিথি পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, যুব সমাজ আজ নানামুখী অবক্ষয় ও বিপথগামিতার শিকার। তাদের সামনে কোনো আদর্শ নেই। অবক্ষয় অনৈতিকতার হাতছানি থেকে তাদের বেরিয়ে আনতে সুস্থ নির্মল জাতীয় চেতনা ও আদর্শপুষ্ট মননশীল সংস্কৃতির চর্চা জোরদার করতে হবে। স্বাগত বক্তব্যে মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী হিজরি নববর্ষ অনুষ্ঠান আয়োজনে সহযোগিতাকারী মিডিয়া, প্রশাসনসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা মুহাম্মদ গোলামুর রহমান আশরফ শাহ বিজাতীয় ভিনদেশি অপসংস্কৃতি চর্চা ছেড়ে নিজস্ব কৃষ্টি সংস্কৃতি ধারণ করার তাগিদ দেন। অনুষ্ঠানে রজভীয়া নূরীয়া ইসলামী সাংস্কৃতিক ফোরাম, ইমাম শেরে বাংলা (র.) ইসলামী সাংস্কৃতিক ফোরাম, আর রেযা ইসলামী সাংস্কৃতিক ফোরাম, মাইজভা-ারী ইসলামী সাংস্কৃতিক ফোরামসহ দেশের খ্যাতনামা ২০টিরও অধিক সাংস্কৃতিক ফোরামের শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।-বিজ্ঞপ্তি

Share
  • 2
    Shares