নীড়পাতা » জেলা-উপজেলা-গ্রাম » নাজিরচরে মদ উদ্ধারের খেসারত দিচ্ছে কৃষকরা!

এক রাতে ছয় গরু চুরির ঘটনা

নাজিরচরে মদ উদ্ধারের খেসারত দিচ্ছে কৃষকরা!

নিজস্ব সংবাদদাতা, বোয়ালখালী

উপজেলার নাজিরচর থেকে গত ১১ এপ্রিল পুলিশ ৬ শত লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করার পরের রাতে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে একসাথে ছয় গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই চরের কৃষকরা তাদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে আতংকে দিন কাটাচ্ছে। এনিয়ে প্রশাসনের ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তারা। স্থানীয়রা জানান, গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নাজিরচর থেকে ২৮বস্তায় ৬শ লিটার মদ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন রাতে মদ উদ্ধারকৃত স্থানের আশপাশের উন্মুক্ত গোয়াল থেকে চার কৃষকের ৬টি গরু চুরি হয়ে যায়। এদের মধ্যে কৃষক আমির হোসেনের ২টি, মূল্য ১ লক্ষ টাকা, মো. সায়েমের ৩টি, মূল্য দেড় লক্ষ টাকা, মো. বখতিয়ারের ১টি, মূল্য ৭০ হাজার টাকা, মো.তাহেরের ১টি, মুল্য ৩০ হাজার টাকা। ক্ষতিগ্রস্ত চার কৃষকের বাড়ী শ্রীপুর মাতবরের বাড়ী। তারা জানান, সকালে চরে গিয়ে দেখা গেছে তাদের ৬টি গরু চুরি হয়ে গেছে। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পুলিশ মদ ধরল আর ক্ষতি হলো আমাদের। এ নিয়ে কোনো ব্যবস্থাও নেয়ার লক্ষণও দেখছি না। এ ব্যাপারে নাজিরচরের কৃষক মো. হাসান জানান, যুগের পর যুগ এ চরে চাষ করছি, গরু লালন পালন করছি। চুরির মতো এধরণের ঘটনা কখনো হয়নি। বুধবার মদের চালান ধরা পড়াতে চিহ্নিত মদ ব্যবসায়ীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে এ কাজ করেছে বলে সকলের ধারণা। তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায়ীরা মদের চালান ধরা পড়ার বিষয়ে আমরা পুলিশকে তথ্য দিয়েছি এমন ধারণা করছেন। জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আলী বলেন, চুরির ঘটনাটি যে মাদক ব্যবসায়ীরা ক্ষোভের বশে করেছে তাতে কোন সন্দেহ নাই। তিনি বলেন, মাদকের এত বড় চালান ধরা পড়ার পর পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে এগুলো কাদের মদ, তারপরও তারা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকার কারণে এ অপরাধ করার সাহস করেছে। তিনি আরো বলেন, বিষয়টি আমি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে জানিয়েছি । এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মাহবুবুল আলম আখন্দ বলেন, এধরণের কোন তথ্য পায়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share