নিজস্ব সংবাদদাতা, নাজিরহাট

ফটিকছড়ি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মোটরসাইকেল চালক আবদুল্লাহ আল আকিব (১৮) গত শনিবার পহেলা বৈশাখ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী উক্ত কলেজের ছাত্র ইনসাফিল হাসান সারুল (১৮) আহত হয়ে চমেক হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। গতকাল ৪৮ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও তার জ্ঞান ফেরেনি। আকিব ফটিকছড়ি উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবছার উদ্দিনের ছোট ছেলে।
স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা যায়, পহেলা বৈশাখের মেলা দেখতে ফটিকছড়ি হতে পাবর্ত্য জেলার মানিকছড়ি উপজেলায় যাচ্ছিলেন। বিকাল ৩ টার দিকে চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের ডলু নয়া বাজারের আগে ডলু খালের সেতুর সন্নিকটে ফটিকছড়িগামী কারের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে মোটরসাইকেল চালক আকিব ও আরোহী সারুল মারাতœক আহত হন। মুমূর্ষু অবস্থায় ২ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে বিকাল ৫ টার দিকে আকিব মারা যান। আহত সারুল ফটিকছড়ি পৌর সদর কাউন্সিলর আবুল কাসেম বাড়ির শাহ জাহানের পুত্র।
গতকাল রবিবার সকাল ১০ টায় ফটিকছড়ি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে প্রথম জানাজাশেষে ও পরে আকিবের মরদেহ উপজেলার ভূজপুর থানাধীন নারায়নহাট ইউনিয়নের হাসনাবাদ নিজ গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ২য় নামাজের জানাজাশেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় সাবেক সাংসদ মজাহারুল হক শাহ চৌধুরী, ফটিকছড়ি পৌর মেয়র আলহাজ ইসমাইল হোসেনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ইউপি চেয়ারম্যান, শিক্ষক, কাউন্সিলর, সাংবাদিক ও ছাত্রসহ সর্বস্তরের হাজারো মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
অপর দিকে আকিবের মর্মান্তিক মৃত্যুতে সংসদ সদস্য আলহাজ সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভা-ারী, সাবেক সংসদ মজহারুল হক শাহ চৌধুরী, উত্তরজেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এম ফখরুল আনোয়ার, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা হুসাইন মুহাম্মদ আবু তৈয়ব, জেলা পরিষদ সদস্য আখতার উদ্দিন মাহমুদ পারভেজ, কাউন্সিলর সাংবাদিক রফিকুল আলম, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বখতিয়ার সাঈদ ইরান, ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক সাহেদুল আলম সাহেদসহ নেতৃবৃন্দ মরহুমের আতœার মাগফেরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।
এদিকে থানা ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল হতে ক্ষতিগ্রস্ত কার ও মোটরসাইকেল থানায় নিয়ে আসে। তবে গতকাল সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

Share