নীড়পাতা » খেলাধুলা » আবাহনী এখন আর শিরোপা লড়াইয়ের দল নয় ৫ম জয়ে শক্ত ভিত গড়েছে বন্দর ক্রীড়া সমিতি

প্রিমিয়ার ক্রিকেটে মুক্তিযোদ্ধা’র জয়

আবাহনী এখন আর শিরোপা লড়াইয়ের দল নয় ৫ম জয়ে শক্ত ভিত গড়েছে বন্দর ক্রীড়া সমিতি

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

সিজেকেএস ইস্পাহানি প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগের খেলা নিয়ে এ মুহুর্তে বলা যায়, আবাহনী লিমিটেড এখন আর শিরোপা লড়াইয়ের দল নয়। ৫ম্যাচের মধ্যে যে দল ৪টিতেই হেরে যায়, তখনতো লড়াই থেকে ছিটকে পড়তেই হবে। বিভিন্ন কারণে ৪দিন পরে শুরু হওয়া এ লীগের নতুন ভেন্যু জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্র লাল দলের বিরুদ্ধে খেলতে নেমে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড রেকর্ড সর্বনি¤œ ৪৭ রানে অল-আউট হয়ে যায়। আর এতে ৯ উইকেটের সহজ জয় আদায় করে নেয় মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্র লাল। ৫ খেলায় এটা তাদের ২য় জয়। অন্যদিকে এম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের খেলায় কোয়ালিটি স্পোর্টসকে ৫ উইকেটে হারিয়ে টানা ৫ম জয়ের ধারা অব্যহত রেখেছে বন্দর ক্রীড়া সমিতি। সংক্ষিপ্ত স্কোর: আবাহনী: ৪৭/১০/২০.৩ ওভার ও মুক্তিযোদ্ধা লাল: ৫০/১/১২.১ ওভার এবং কোয়ালিটি: ২৭৩/৯/৫০ ওভার ও বন্দর ক্রীড়া সমিতি: ২৭৭/৫/৪৮.৩ ওভার। টস জয়ী আবাহনীর ইনিংসে সাইদুল ইসলাম ইমরান (২৩) ও ইলিয়াস সানি (২০) কেউ-ই দু-অংকের রান করতে পারেনি। এরমধ্যে ৭ জন কোন রানই করতে পারেননি। মুক্তিযোদ্ধার দুই সফল বোলার আব্দুল মমিন ৪ এবং মঈনুল ইসলাম ১৭ রানে ৪টি করে এবং সাদ্দাম হোসেন ৮ রানে ২ উইকেট নেন। জবাবে ইকবাল হোসেনের অপ: ২৫ এবং মো. আসলামের অপ: ২১ রানের উপর ভর করে ১২.১ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে সহজ জয় পেয়ে যায় মুক্তিযোদ্ধা লাল দল। এম এ আজিজে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে কোয়ালিটি ২৭৩ রানের বিশাল স্কোর গড়ে। এতে শাহারিয়ার কমল সর্বোচ্চ ৫৫, কায়সার ৪৩, জাবেদ ৩৫, মুশফিকুর ৩১, আরাফাত ৩০, সাব্বির ২৫, নুরুদ্দিন নবীন অপ: ১৭ ও জুয়েল ১৪ রান করেন। বন্দরের তারেক আজিজ ৫৮ রানে ৪ উইকেট নেন। এছাড়া মনিরুল হক ৫৬ রানে ২টি এবং মুরাদ ১৭ রানে ১ উইকেট নেন। বন্দরের ইনিংসে জ্বল জ্বল করছিলো সাবেক জাতীয় ক্রিকেটার আফতাব আহমেদের অপরাজিত ৯৪ রানে ইনিংস। তিনি ৯০ বলে ৮চার ও ৪টি বিশাল ছক্কার সাহায্যে এই রান করেন এবং দলের জয়ে নিখুত ভুমিকা রাখেন। মুলত: তার নিখুত পরিচালনায় বন্দর ক্রীড়া সমিতি দল কোয়ালিটির ছুড়ে দেয়া ২৭৩ রানের ইনিংস ৯ বল বাকি থাকতেই আদায় করে নেয় এবং ৫ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে। আফতাবের অপ: ৯৪ রান ছাড়া, অন্যান্যের মধ্যে সামশুদ্দিন বাপ্পা ৫৮, শাহাদাত হোসেন ৪৪, রুবেল ৩১ ও রেজাউল করিম অপ: ২৪ রান করেন। কোয়ালিটির নুরুদ্দিন নবীন ৩৬ ও কায়সার ৪২ রানে ২টি করে উইকেট নেন।