নীড়পাতা » জেলা-উপজেলা-গ্রাম » ডিউটি করা হলো না চকরিয়া হাই স্কুল শিক্ষক জালালের

এসএসসি পরীক্ষা

ডিউটি করা হলো না চকরিয়া হাই স্কুল শিক্ষক জালালের

এম জাহেদ চৌধুরী, চকরিয়া-পেকুয়া

চকরিয়ায় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে ডিউটি করা হলো না চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহজালাল উদ্দিনের। ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা থেকে তাকে ফোন করেও পাওয়া যাচ্ছিল না। ফোনে রিং হলেও রিসিভ করেননি তিনি। ধর্ম বিষয়ের এ শিক্ষক চকরিয়া গ্রামার স্কুল কেন্দ্রে ডিউটি করার কথা ছিল। পরে থানা পুলিশ দুপুর পৌণে ১২টার দিকে সরকারি হাইস্কুলের আবাসিক কক্ষের বাইরে গেটের তালা ভেঙে ওই শিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার করে।
৪৭ বছর বয়সী শিক্ষক জালাল উদ্দিন বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের মধ্যম পুঁইছড়ি বহনাকাটা এলাকার মৃত মৌলানা সিরাজের ছেলে। তিনি ব্যক্তিগত জীবনে অবিবাহিত ছিলেন। চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জিএএম এনামুল হক বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে যায়নি খবর পেয়ে শিক্ষক শাহজালালের খোঁজ করা শুরু করি। তার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও রিসিভ হয়নি। আবাসিক ভবনের গেটে তালাবদ্ধ হলেও তার কক্ষের দরজা ছিল খোলা। তাই তাকে শোয়া অবস্থায় দেখা যাচ্ছিল। সন্দেহ জাগলে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান ও চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীকে অবহিত করি। পরে থানার উপপরিদর্শক আবদুল খালেকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে গেটে তালা ভেঙে শিক্ষক জালালের মরদেহ উদ্ধার করে। ওই সময় শিক্ষকের বুকের ওপর মোবাইল ফোনটি ছিল। ঘটনাস্থলে যাওয়া চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী মেডিকেল অফিসার তামিমুল হাসান শিক্ষক জালালকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি মরদেহ দেখে প্রাথমিক ধারণার ভিত্তিতে বলেন, অসুস্থ হয়ে ওই শিক্ষক শেষ রাতের যেকোন সময় মারা যেতে পারেন।