জিগারুল ইসলাম জিগার রাঙ্গুনিয়া

শনিবার দিনের বেলায় নিজের জন্য কোনো কাজ করেন না তাই সূর্যাস্তের পর রাতের বেলা এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিলেন খ্রিস্টান ধর্মের সেভেন ডে এডভেন্টিস্ট সম্প্রদায়ের ৭১ জন পরীক্ষার্থী। চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় রাঙ্গুনিয়ার সুখবিলাস উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসব পরীক্ষার্থী রাতের বেলায় অভিন্ন প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে পরীক্ষা দিচ্ছেন। ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী খ্রিস্টান ধর্মের সেভেন ডে এডভেন্টিস্ট সম্প্রদায়ের লোকজন সপ্তাহের ছয়দিন কাজকর্ম করলেও প্রতি শনিবার দিনের বেলায় নিজের জন্য কোন কাজকর্ম করেন না। সে জন্য তারা শনিবার দিনের বেলায় কলম হাতে নিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেন না। এবারের এসএসসি পরীক্ষার রুটিনে ৪টি শনিবারে পরীক্ষা রয়েছে। রাঙ্গুনিয়ার

সুখবিলাস সংলগ্ন রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গাল হালিয়া এ্যাডভেন্টিস্ট হিলট্র্যাক্ট খ্রিস্টান সেমিনারি স্কুলের ৭১ জন শিক্ষার্থী এবারে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পূরণ করেছেন একই উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। বাঙ্গালহালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র হচ্ছে রাঙ্গুনিয়ার সুখবিলাস উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র। ধর্মীয় বিধি নিষেধের কারণে বোর্ড থেকে অনুমতি নিয়ে রাতের বেলায় পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করেন কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। রাতের বেলায় পরীক্ষায় অংশ নিলেও তাদের পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হয় অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের সাথে সকাল ৯ টায়। সকাল নয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত তাদের অবস্থান করতে হয় পরীক্ষা কেন্দ্রেরই অভ্যন্তরের একটি কক্ষে। সেখানেই তাদের নয় ঘণ্টার বন্দীত্ব সময় পার করতে হয় এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে। দুপুর বেলা পরীক্ষাশেষে অন্যান্য পরীক্ষার্থীরা বাড়ি চলে গেলেও ৭১ পরীক্ষার্থীকে নির্ধারিত কক্ষের মধ্যে থেকেই দুপুরের খাবার, বিকেলের নাস্তা গ্রহণ ও প্রাকৃতিক কাজ সারতে হয়। সুখবিলাস কেন্দ্রে গত ১০ ফেব্রুয়ারি শনিবার সূর্যাস্তের পর রাতের বেলায় অংক বিষয়ে পরীক্ষা দিয়েছেন ৭১ জন পরীক্ষার্থী। বিদ্যুতের আলোতে দুটি কক্ষে ৭১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিলেও তাদের প্রত্যেকের সাথে ছিল ব্যক্তিগতভাবে নেয়া বৈদ্যুতিক চার্জলাইট। বিদ্যুৎ চলে গেলেই যাতে চার্জলাইটের আলোয় তারা লিখতে পারেন। সন্ধ্যা ৬ টায় শুরু হয়ে পরীক্ষা চলে রাত ৯টা পর্যন্ত। এরমধ্যে ৫ মিনিটের জন্য বিদ্যুৎ চলে গেলে পরীক্ষার্থীরা চার্জলাইট জ্বালিয়ে লিখে যান। রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামাল হোসেন, শিক্ষা কর্মকর্তা আক্রাম হোসেন ও একাডেমিক সুপারভাইজার বদরুল আলম রাতের পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এর আগে গত ৩ ফেব্রুয়ারি শনিবার এই ৭১ জন পরীক্ষার্থী রাতের বেলায় বাংলা ২য় পত্রের পরীক্ষায় অংশ নেন। আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি শনিবারও পরিবেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ে তারা রাতের বেলায় পরীক্ষায় অংশ নেবে। ২৪ ফেব্রুয়ারি শনিবার ভুগোল ও পরিবেশ বিষয়ে বোর্ডের পরীক্ষা থাকলেও এ বিষয়ে এই শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেই।
রাঙ্গুনিয়ার সুখবিলাস এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব রিক্তা সেন বলেন, সুখবিলাস উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের মোট ৬৩০ জন এসএসসি পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭১ জন খ্রিস্টান ধর্মের সেভেন ডে এডভেন্টিস্ট সম্প্রদায়ের। তাদেরকে সকাল ৯ টায় অন্যান্য পরীক্ষার্থীর সাথে সুইপিং করে কেন্দ্রে প্রবেশ করানো হয় এবং বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত কেন্দ্রের নির্ধারিত কক্ষে তাদের রাখা হয়। পরে সূর্যাস্তের পর তাদের পরীক্ষা কেন্দ্রে বসিয়ে ওই একই প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা নেয়া শুরু হয়।
পরীক্ষা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ আগে পরীক্ষার্থী মরিয়ম চাকমা এর কারণ হিসেবে বলেন, ঈশ্বর সাতদিনের ছয়দিন সৃষ্টি করেছেন এবং একদিন বিশ্রাম নিয়েছেন। সে কারণে সপ্তাহে একদিন (শনিবার) আমরা সেবামূলক কাজ ছাড়া নিজের জন্য দিনের বেলায় কোনো কাজ করি না। তবে, এভাবে নয় ঘণ্টা বন্দী থেকে পরীক্ষা দিতে আমাদের খুব অসুবিধা হয়। শনিবার যেন কোন পরীক্ষা না রাখে সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি করে সে।
রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা মোতাবেক এভাবে আমাদের পরীক্ষা নিতে হচ্ছে। পরীক্ষা নিতে গিয়ে শিক্ষকসহ সকলকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়।