নীড়পাতা » শেষের পাতা » ঈদের পর কঠোর আন্দোলন

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে…

ঈদের পর কঠোর আন্দোলন

মোহাম্মদ আলী

দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দুই দাবিতে মাঠে নামতে যাচ্ছে বিএনপি। এমনকি দাবি আদায়ের লক্ষ্যে ঈদের পর আন্দোলনে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি।
দলের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানায়, দুই দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বিএনপি তৃণমূলের পরামর্শ গ্রহণ করছে। দলের নীতিনির্ধারকরা পরামর্শ নিচ্ছেন বিভাগীয় সম্পাদকমলী জেলা পর্যায়ের নেতাদের। ইতোমধ্যে বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সহসাংগঠনিক সম্পাদক যুগ্ম মহাসচিবের সাথে আলোচনা করেছেন দলের মহাসচিব স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। এরপর কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদকমলীদের সাথেও সভা করেছেন দলের নীতি নির্ধারকরা। আগামী আগস্টে বসতে যাচ্ছেন জেলা পর্যায়ের নেতাদের সাথে। সভায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্থায়ী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন। চট্টগ্রাম বিভাগের সকল জেলার নেতাদের সাথে সভা হবে আগামী আগস্ট। দলের চেয়ারপার্সনের গুলশানস্থ কার্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত একটানা সভা হবে। ওই সভায় বিভাগের অন্যান্য জেলা নেতৃবৃন্দ ছাড়াও চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর দক্ষিণ জেলা থেকে জন করে প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করবেন।
এই সভা সম্পর্কে বিএনপির সিনিয়র এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘দলের চেয়ারপার্সনের মুক্তির বিষয়টি ছাড়াও ওই সভায় আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিটি নিয়ে বিএনপি এখনো অনড় অবস্থানে রয়েছে। তাই বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে আগামী ঈদের পর জোরালো আন্দোলন গড়ে তুলতে চায় বিএনপি। মূলত এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে বিএনপি প্রস্তুতি নিচ্ছে। তারই আলোকে বিএনপি এসব সভা করে জেলা, বিভাগ সম্পাদকমলীর মতামত গ্রহণ করছে। পাশাপাশি তৃণমূল নেতাদের করণীয় সম্পর্কে জানিয়ে দেবেন দলের নীতি নির্ধরকরা।
ব্যাপারে জানতে চাইলে বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘ আগস্টের ওই সভায় প্রতি জেলা থেকে জন করে অংশগ্রহণ করবেন। এর মধ্যে রয়েছেন সভাপতি, সিনিয়র সহসভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এক নম্বর সাংগঠনিক সম্পাদক। সভায় দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি বেশি প্রাধান্য পাবে। ব্যাপারে জেলা পর্যায়ের নেতাদের মতামত গ্রহণ এবং দলের চেয়ারপার্সনের মুক্তির দাবিতে করণীয় সম্পর্কে জানিয়ে দেওয়া হবে।
সভায় অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘ আগস্টের ওই সভায় দলের চেয়ারপার্সনের মুক্তি আগামী নির্বাচনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। সভায় মহানগর বিএনপির সভাপতি হিসেবে আমি ছাড়াও সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল আলম এক নম্বর সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু অংশগ্রহণ করবেন।

Share