নিজস্ব সংবাদদাতা ফটিকছড়ি

গত ১০ জানুয়ারি দিবাগত রাতে ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইমরুল ইসলাম রাফি (২৭)-এর বাড়িতে ঢুকে একদল দুষ্কৃতী কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে। পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, গত বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে মুখোশপরা / জনের একদল দুষ্কৃতী রাফির সুন্দরপুর ইউপির ছোটছিলোনীয়া গ্রামের আব্বাচ সিকদার বাড়িতে ঘরের দরজা ভেঙে ঢুকে তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করে। এসময় ঘরে তার মাবাবাকেও দুষ্কৃতীরা জিম্মি করে রাখে। একপর্যায়ে তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় রাফিকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে চমেক হাসপাতালের ২৮নং ওয়ার্ডের ২৮নং বেডে চিকিৎসাধীন। এদিকে ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তার সতীর্থ ছাত্রলীগ কর্মীরা চট্টগ্রামখাগড়াছড়ি সড়কের পেলাগাজীদিঘি এলাকায় এবং ফটিকছড়ি হেঁয়াকো সড়কের পাইন্দং স্কুল এলাকায় সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে ফটিকছড়ি থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ ঘটনাস্থলে এসে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে প্রায় দুঘণ্টা চলার পর

অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। অবরোধ চলাকালে উক্ত সড়কে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে।
এদিকে, হামলার কারণ সম্পর্কে তার পরিবারের পক্ষ থেকে রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে এঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মুজিবুল হক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক শাহ আলম সিকদার, যুগ্ম আহবায়ক মুজিবুর রহমান স্বপন, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক সাহেদুল আলম সাহেদ প্রমুখ