নীড়পাতা » জেলা-উপজেলা-গ্রাম » খাদ্য বিভাগ আতপ চাল সংগ্রহের নির্দেশনা চায়

বৃহত্তর চট্টগ্রামে কৃষকরা বঞ্চিত

খাদ্য বিভাগ আতপ চাল সংগ্রহের নির্দেশনা চায়

আরফাতুল মজিদ, কক্সবাজার

এবারে কক্সবাজারে আতপ চাল সংগ্রহ শুরু না হওয়ায় পৌনে দুই লাখ কৃষক বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা বিরাজ করছে। গেল বছরের চেয়ে এবারে আমনের উৎপাদন বেশি হলেও সংগ্রহ শুরু না হওয়ায় কৃষকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অথচ দেশের অন্যান্য এলাকায় মোটামুটি ভাল দাম দিয়েই চাল কিনছে সরকার। কারণে পুরো চট্টগ্রামেই চাল সংগ্রহ হচ্ছে না।
খাদ্য বিভাগ সূত্র জানায়, ২০১৭১৮ সালে সারাদেশ থেকে লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে খাদ্য বিভাগ। আর এসব চাল সংগ্রহ করা হবে প্রতি কেজি ৩৯ টাকা দরে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এসব চাল সংগ্রহের সময় নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু এবারে আতপ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ না করায় বাদ পড়ছে বৃহত্তর চট্টগ্রামের প্রায় সব অঞ্চল। এর মধ্যে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ফেনী জেলায় এক ছটাক চালও সংগ্রহের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়নি। তবে ফটিকছড়িতে মাত্র ২৬ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের টার্গেটের কথা বলা হয়। কারণ চট্টগ্রামে সিদ্ধ চাল কল নেই। অঞ্চলের মানুষ সিদ্ধ চাল খেতে অভ্যস্ত নয়। অতীতে আতপ চাল সংগ্রহ করা হলেও এবারে আতপ চাল সংগ্রহ শুরু না হওয়ায় কৃষকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
প্রসঙ্গে কক্সবাজারের রামু উপজেলার বিশিষ্ট খামারি কক্সবাজার পিপলস ফোরামের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাফ্ফর আহমদ বলেন, ‘এবারে আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। সরকার দরও মোটামুটি ভাল দিয়েছে। অবস্থায় কক্সবাজারে যদি চাল সংগ্রহ করা না হয় তাহলে সরকারের দেয়া ওই সুযোগ থেকে কৃষকরা বঞ্চিত হবে।তিনি আরও বলেন, ‘খাদ্য বিভাগ যদি কক্সবাজারে চাল সংগ্রহ করতো তবে চাল কলের মালিকরা কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতো। এতে কৃষকরা উপকৃত হতো।
কক্সবাজার কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্র জানায়, চলতি আমন মওসুমে কক্সবাজারে ৭৮ হাজার ৬৫ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ করা হয়। ওই পরিমাণ জমিতে লাখ হাজার ৫৭৮ মেট্রিক টন ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও টার্গেট ছাড়িয়ে তা লাখ ৩৮ হাজার ৬৯৯ মেট্রিক টনে গিয়ে ঠেকে। এমনকি গেল বছর আমনের উৎপাদন হয়েছিল লাখ ২৭ হাজার ৯৫৯ মেট্রিক টন। গতবারের চেয়ে এবারে ১০ হাজার ৭৪০ মেট্রিক টন বেশি উৎপাদন হয়েছে। কক্সবাজারের এক লাখ ৭০ হাজার কৃষক আমন চাষাবাদের সাথে জড়িত। অবস্থায় কক্সবাজার থেকে আমন সংগ্রহ যৌক্তিক দাবি রাখে বলেও কৃষকরা জানান।
প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এসএম তাহসিনুল হক বলেন, ‘আতপ চাল সংগ্রহের কোন সিদ্ধান্ত না থাকায় কক্সবাজারে চাল সংগ্রহ হচ্ছে না।
দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘দেশব্যাপী সিদ্ধ চাল সংগ্রহ চলছে। কিন্তু চট্টগ্রাম অঞ্চলে সিদ্ধ চাল কল না থাকায় আমন সংগ্রহ হচ্ছে না। বিষয়টি জানিয়ে আতপ চাল সংগ্রহ করার জন্য নির্দেশনা চেয়ে উচ্চ পর্যায়ে চিঠি দেয়া হয়েছে।