নীড়পাতা » স্থানীয়-২ » পটিয়া দক্ষিণঘাটায় সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা

পটিয়া দক্ষিণঘাটায় সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা পটিয়া

পটিয়া পৌর এলাকার মাঝেরঘাটায় সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে পটিয়া থানায়। গত জানুয়ারি সকালে জমি নিয়ে বিরোধের ধরে সংঘর্ষের ওই ঘটনায় উভয়পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করেছে। মোহাম্মদ মফিজুর রহমান গত জানুয়ারি রাতে এবং একদিন পর জানুয়ারি তুহিন আক্তার পাল্টা মামলা করেন।
বর্তমানে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিরোধ পাল্টাপাল্টি মামলাকে কেন্দ্র করে যেকোন সময় দুই পক্ষের মধ্যে আবারো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে আশঙ্কা করছে এলাকার লোকজন।
এদিকে তুহিন আক্তারের পক্ষে মোহাম্মদ লোকমান জানান, প্রতিপক্ষ মফিজুর রহমান সমাজে কারো কথা শোনেন না এবং সালিশ বিচার মানেন না। সামাজিকভাবে পরিমাপ জমির বিরোধ মিমাংসা করা হলেও মফিজুর রহমান তাও মানেননি। আমরা আমাদের জমিতে কাজ করতে গেলে প্রতিপক্ষ বহিরাগত লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। সময় সোলাইমান (৩২) ওসমান গনি (৩৮) গুরুতর আহত হন। এদের মধ্যে সোলাইমানের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি বর্তমানে চমেক হাসাপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। ওই ঘটনায় জনকে এজাহারনামীয় আসামি করা হয়। এরা হলেন : মৃত খায়ের আহমদের পুত্র মফিজুর রহমান, কামরুল ইসলাম, বেলাল উদ্দিন হেলাল উদ্দিন, মফিজুর রহমানের পুত্র আরাফাতুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম স্ত্রী দিলুয়ারা বেগম।
বিষয়ে প্রতিপক্ষ মফিজুর রহমান জানান, বিরোধীয় জমি নিয়ে আগে থেকেই থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। যার প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গাছ না কাটার নির্দেশ দিয়েছেন। তা অমান্য করে লোকমান তার ভাইয়েরা বিরোধীয় ওই জমিতে বাউন্ডারি তৈরির সময় আমি প্রতিবাদ করি। কারণে আমাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় আমরাও একটি মামলা দায়ের করেছি।
পটিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ জানান, উভয়পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের বিষয়টি সত্য। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আইনশঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি না হয় সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে। পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে