স্পোর্টস ডেস্ক

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) এবার তারুণ্য নির্ভর দল গড়েছে চিটাগং ভাইকিংস। দলে নেই বিদেশি বড় কোন তারকা। আসরের সবচেয়ে কম বাজেটের দলটিই তারা। ফলে স্বাভাবিকভাবেই মাঠে সংগ্রাম করছে দলটি। তিন ম্যাচের দুইটিতেই হেরেছে। তবে এটাকে সংগ্রাম বলতে রাজী নন দলের জিম্বাবুইয়ান তারকা সিকান্দার রাজা।
পরের তিন ম্যাচের তিনটিতেই জেতার প্রত্যয় প্রকাশ করেন অলরাউন্ডার। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গতকাল সোমবার অনুশীলন শেষে দলের অবস্থা নিয়ে রাজা বললেন, ‘দেখেন আমার মনে হয় না সংগ্রাম শব্দটা ঠিক। আমার মনে হয় আমরা আমাদের দিকে ফলাফল আনতে ম্যানেজিং কিছু ভুল করেছি। আপনি কখনোই বলতে পারেব না, পরের তিন ম্যাচের তিনটিতেই আমরা জিতেও যেতে পাড়ি। তাই উদ্বিগ্ন হওয়ার জন্য এটা অনেক আর্লি। আমরা এখনও সঠিক কম্বিনেশন খুঁজছি। আমি নিশ্চিত আগামী দুইএক ম্যাচের মধ্যেই আমরা সেরা কম্বিনেশন খুঁজে পাবো এবং এগিয়ে যাবো। এবং প্লে অফে খেলার সুযোগ পাবো এটাই আমাদের এই মুহূর্তের লক্ষ্য।কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে দারুণ জয় পায় চিটাগং। এরপর ঢাকায় খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষেও হারে দলটি। আজ মঙ্গলবার আবার কুমিল্লার বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচ খেলবে দলটি। আর ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়াতে চায় চিটাগং। সেটি তারা ভালো ভাবেই পারবেন বলে দৃঢ় বিশ্বাস রাজার, ‘অবশ্যই আমরা এটা করতে পারবো।সিলেট থেকে ফেরার পর ঢাকায় হাই স্কোরিং ম্যাচ দেখতে পাচ্ছে না বিপিএল। তবে এর সঙ্গে এক মত নন রাজা, ‘১৭০, আমার মনে হয় এটা হাই স্কোরিং ম্যাচ। শেষ তিন ওভারে তারা ৫০ রান নিয়ে শেষ করেছে।
আমার মনে হয় কার্লোস (ব্রেথওয়েট) এবং তার সতীর্থ (আরিফুল হক) খুবই ভালো ব্যাটিং করেছে। আমার মনে হয় টুর্নামেন্টে এগিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে আপনি ঢাকাতেও হাই স্কোরিং ম্যাচ দেখতে পারবেন।আর এর পক্ষে যুক্তিও দেন রাজা, ‘ঢাকার উইকেট কিছুটা স্টিকি। এখানে পেস এবং বাউন্স ভালো হয়। আমার মনে হয় ঢাকায় রান করা কিছুটা সহজ।