নীড়পাতা » সম্পাদকীয় » শঙ্খ নদীতে বিষ দিয়ে মাছ শিকার

শঙ্খ নদীতে বিষ দিয়ে মাছ শিকার

চন্দনাইশ সাতকানিয়া থানার দোহাজারী, দিয়াকুল, ধোপাছড়ি, বাজালিয়া, মনেয়াবাদসহ বেশ কিছু ইউনিয়নের পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে শঙ্খ নদী। নদীটির পাশ দিয়ে যতটুকু চোখ যায় দেখা যায়, সবুজের সমারোহ যা নিমেষে প্রাণ জুড়িয়ে দেয়। মলাডেলা, বাইলা, চিংড়ি, টেংরাসহ বিভিন্ন ছোট বড় প্রজাতির সুস্বাদু মাছের প্রজনন আবাসস্থল এই শঙ্খ নদীর উপর নির্ভরশীল শঙ্খপাড়ের অনেক জেলে পরিবার। কিন্তু প্রতিবছর বর্ষামৌসুমের শেষের দিকে এবং শীতকালের শুরুতে কিছু কতিপয় দুর্বৃত্ত শঙ্খ নদীতে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের ধ্বংসলীলা শুরু করে যার ফলে প্রতিবছর বিলুপ্ত হচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ বিপন্ন হচ্ছে জীববৈচিত্র্য। বর্তমানে শীলঘাটা, ধোপাছড়ি, দিয়াকুল অংশে সরেজমিনে গেলে দেখা মিলবে, বিষ দিয়ে নির্বিচারে মাছ নিধনের এই চিত্র। দুর্বৃত্তদের বিষ দিয়ে মাছ শিকারের এই সুযোগে শঙ্খপাড়ের বাসিন্দারাও নেমে পড়েছেন জাল, মশারি অন্যান্য মাছধরার সরঞ্জাম নিয়ে মাছ ধরতে। স্থানীয়দের থেকে জানা যায়, প্রতিবছর শীতকালের শুরুর দিকে যখন শঙ্খের পানি কমে আসে তখন স্থানীয় কিছু দুর্বৃত্ত এই হীনকাজে লিপ্ত হয়। নির্বিচারে বিষ প্রয়োগের ফলে মাছের স্বাভাবিক প্রজনন ব্যাহত বিলুপ্তি ঘটছে এবং বিভিন ধরনের জলজ প্রাণী কীটপতঙ্গও মারা পড়ছে। এছাড়া বিষ দিয়ে শিকারকৃত এইসব মাছ বাজারেও বিক্রি করা হয় দেদারসে, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য বিশাল বড় হুমকি। তাই, স্থানীয় প্রশাসন মৎস্য বিভাগকে এই বিষয়ে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে তদন্তপূর্বক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইন প্রয়োগ এবং স্থানীয়দের মধ্যে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের কুপ্রভাব বিষয়ক সচেতনতা তৈরি করা অতীব প্রয়োজন

জুয়েল দাশ গুপ্ত
চিকিৎসা প্রযুক্তিবিদ, চট্টগ্রাম