চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে জলাবদ্ধতা নিরসনে গণসচেতনতা সৃষ্টি, খাল খনন সংস্কার, কালুরঘাট হতে চাক্তাই রিভার ড্রাইভ আউটার রিং রোড নির্মাণ বিষয়ে ধারাবাহিক কর্মসূচি অনুযায়ী নগরীর ১৯ নং বাকলিয়া ওয়ার্ডে উঠান বৈঠক মতবিনিময় সভা গতকাল অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম।
বৈঠকে তিনি বলেন, বাকলিয়া একটি ঘনবসতিপূর্ণ জলাবদ্ধতাপ্রবণ নি¤œাঞ্চল। দীর্ঘদিন এখানে পরিকল্পিত উন্নয়ন বলতে কিছুই হয়নি। আমি সিডিএর দায়িত্ব নিয়ে উন্নত বাকলিয়া তৈরির কাজকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। কারণ আমি মনে করি, বৃহত্তর বাকলিয়াকে পিছিয়ে রেখে চট্টগ্রামের কাঙ্খিত উন্নয়ন সম্ভব নয়। সকলের সহযোগিতায় আমি সফলতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছি। উন্নত বাকলিয়া এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তব।
প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামকে এগিয়ে নিতে চাক্তাই খালের মুখ হতে কালুরঘাট পর্যন্ত প্রায় হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ১২টি খালের মুখে স্লুইসগেটসহ রিভার ড্রাইভ রোড একনেকে অনুমোদন দিয়েছেন। শিগগিরই এর কাজ শুরু হবে। রিভার ড্রাইভ নগরীর রূপ বদলে দেবে। এতে সবচেয়ে বেশি সুফল পাবে বাকলিয়াবাসী। বৃহত্তর বাকলিয়ায় দীর্ঘদিনের জলাবদ্ধতা নিরসন, ভূমি উন্নয়ন, পর্যটন শিল্পের বিকাশ, কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ সার্বিক উন্নয়নের আওতায় চলে আসবে।
আবদুল নুরের সভাপতিত্বে উঠান বৈঠকে বক্তব্য রাখেন সিডিএ বোর্ড সদস্য মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক কেবিএম শাহজাহান, দক্ষিণ বাকলিয়া আওয়ামীলীগ আহবায়ক জসিম উদ্দীন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবাযক আবদুল মান্নান, ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি নবাব খান, শফিউল আজম হীরু, শফিউল আজম বাহার, মইনুদ্দীন তুহিন, আরশাদুর রহমান, মঈনুল আলম খান, ডা. মামুনুল আলম রানা।বিজ্ঞপ্তি