নিজস্ব প্রতিবেদক

সন্ত্রাসীদের চাঁদা দাবির কারণে বন্ধ থাকার পর পুনরায় শুরু হয়েছে চট্টগ্রামকাপ্তাই সড়কের মদুনাঘাট এলাকা থেকে কাপ্তাই রাস্তার মাথা পর্যন্ত স্থায়ী সংস্কারের কাজ। গত অক্টোবরের শুরুতে সংস্কারের কাজ শুরু হলে সন্ত্রাসীদের চাঁদা দাবির কারণে কাজ বন্ধ হয়ে যায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। কারণে প্রায় ২০ দিন সংস্কার কাজ বন্ধ থাকে। এতে সড়কে চলাচলকারী যাত্রীদের দুর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পায়। পরে অবশ্য অলিখিত একটি সমঝোতার পর পুনরায় সড়ক সংস্কারের কাজ হয় বলে সংশ্লিষ্ট নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে।
মদুনাঘাট থেকে কাপ্তাই রাস্তা মাথা পর্যন্ত সড়কের দূরত্ব চট্টগ্রাম ওয়াসার মদুনাঘাট কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প ফেজ এর পাইপলাইন স্থাপনে খোঁড়াখুড়ির কারণে বিগত প্রায় ১৫ মাস ধরে সড়কে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা। খোঁড়াখুড়ির কারণে প্রায় কিলোমিটার সড়কে বড় বড় গর্তের ছড়াছড়ি। বৃষ্টি হলে গর্তে পানি জমে যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ আরো বেড়ে যেত। ভোগান্তির কারণে ভুক্তভোগী যাত্রীদের অনেকে সড়কে চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। পাইপলাইন বসাতে ওয়াসার খোঁড়াখুড়ির পর দ্রুত সড়ক সংস্কার না করায় যাত্রীদের এই ভোগান্তির সৃষ্টি হয়। অবস্থায় সড়কটি স্থায়ী সংস্কারের উদ্যোগ নেয় ওয়াসা। কিন্তু চাঁদা দাবির কারণে সড়ক সংস্কারের কাজ বিলম্ব হচ্ছে। চট্টগ্রাম ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইম্প্রুভমেন্ট সেনিটেশন’ ‘প্রকল্পের ডেপুটি প্রজেক্ট ডাইরেক্টর প্রকৌশলী মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘মদুনাঘাট কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প ফেজ এর পাইপলাইন বসাতে মদুনাঘাট থেকে কাপ্তাই

রাস্তার মাথা পর্যন্ত রাস্তা কাটে ওয়াসা। দফায় দফায় দুর্ভোগ কমাতে ওয়াসার দুইটি প্রকল্পের পাইপলাইনের কাজ এক সাথে করে ফেলে। কিলোমিটার সড়কের মধ্যে প্রায় কাজ শেষ হয়েছে। বর্তমানে নজুমিয়া হাট এলাকায় একটি কালভার্ট ক্রসিংয়ের কাজ চলছে। এটির কাজও আগামী ১৫ দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।
প্রকৌশলী মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘সড়ক জনপথ (সওজ) বিভাগের সাথে চুক্তি অনুযায়ী ওয়াসার পাইপলাইনের কাজশেষে সড়ক স্থায়ী সংস্কার করে দিচ্ছে ওয়াসা। প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সংস্কার কাজ গত পহেলা অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে। সংস্কার কাজের জন্য ঠিকাদারকে সময় দেওয়া হয়েছে মাস (অক্টোবরজানুয়ারি) তবে তার আগেই ডিসেম্বরের মধ্যে সংস্কার কাজ শেষ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।
সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ থাকার প্রসঙ্গে প্রকৌশলী মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘সামান্য একটু সমস্যা হয়েছে। তবে এই সমস্যা কেটে গেছে। বর্তমানে পুরোদমে সংস্কার কাজ চলছে।