নীড়পাতা » জেলা-উপজেলা-গ্রাম » বাঘাইছড়ি সাজেকে কর্মস্থানের অভাবে খাদ্য সংকট

বাঘাইছড়ি সাজেকে কর্মস্থানের অভাবে খাদ্য সংকট

পূর্বকোণ প্রতিনিধি, রাঙামাটি অফিস

রাঙামাটি পার্বত্য জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলার সাজেক ইউনিয়নে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। বাঘাইছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমা জানান, আয়-উপার্জন ও কর্মস্থানের অভাবে এ সংকট।
সেখানকার খাদ্য সংকট মোকাবেলায় নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বাঘাইছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা অভাবগ্রস্তদের মাঝে চাল বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছেন। বর্তমানে সাজেক ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের দুই হাজারের অধিক লোকজন খাদ্যাভাবে ভুগছেন। তাদের বেশিরভাগ মানুষ পাহাড়ি জঙ্গলের আলু ও কলাগাছ খেয়ে অনাহারে অর্ধাহারে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছেন। তাছাড়া বাঘাইছড়ি সদর ও খাগড়াছড়ি থেকে চাল নিয়ে সেখানে প্রতি কেজি চাল বিক্রি করা হচ্ছে ৬০-৯০ টাকায়। স্থানীয়রা জানান, ওই ইউনিয়নের উদোলছড়ি, নতুন জৌপুই, পুরান জৌপুই, নিউথাংমাং, নিউলংকর, ব্যাটলিংপাড়া, ব্যাটলিং তারুংপাড়া, কমলাপুর, লংত্যাং, অরুণপাড়া, কাছ্যাপাড়া, শিয়ালদাই, গন্ডাছড়া, থলছড়া, এগাজ্যাছড়ি, মোন আদাম, ধাব আদাম, কলকপাড়া, বাদলছড়ি, নিমুইপাড়া, হাগড়াকেজিং, দুলুছড়ি, দুলবন্যাসহ প্রভৃতি গ্রামে খাদ্য সংকট চলছে। সাজেকে খাদ্য সংকটের কথা জানিয়ে বাঘাইছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমা বলেছেন, তিনি স্থানীয়দের কাছ থেকে জানতে পারেন, সেখানে গত প্রায় দুইমাস ধরে খাদ্য সংকট চলছে। খবর পেয়ে এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে দেখেন, ওইসব লোকজন ভুগছেন অর্ধাহারে অনাহারে। এতে অভাবগ্রস্ত মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তার জন্য ত্রাণ মন্ত্রণালয়, জেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি দফতরে আবেদনপত্র দেয়া হয়। কিন্তু এ পর্যন্ত ইতিবাচক কোনো সাড়া মেলেনি। শেষে তারা উপজেলা এবং ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষে যৌথভাবে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অভাবগ্রস্ত পরিবারদের মাঝে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ শুরু করেন। তিনি বলেন, শনিবার-রবিবার এলাকায় গিয়ে চাল বিতরণ করা হয়। ওই সময় সাজেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নেলসন চাকমাসহ বাঘাইছড়ি উপজেলাধীন ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দীপ্তিমান চাকমা ও ইউপি মেম্বাররা উপস্থিত ছিলেন। এ পর্যন্ত আমরা প্রায় ৫শ পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ করেছি নিজস্ব উদ্যোগে। সাজেকের খাদ্য সংকট মোকাবেলায় ৬শ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য বরাদ্দ চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে লিখিত দরখাস্ত পাঠানো হয়েছে বলে জানান, সাজেক ইউপি চেয়ারম্যান নেলসন চাকমা।