নিজস্ব প্রতিবেদক

মেয়েদের পরনে লাল বেনারসী, মাথায় টিকলি, গলায় ভারী গহনা। ছেলেদের পরনে শেরওয়ানী, পাঞ্জাবি, কোর্ট স্যুট। কারো কারে পরনে ঐতিহ্যবাহী লাল গ্রামীণ চেক, হলদে গরদ ও খাদির বাসন্তী রঙের পোশাক। সেই সঙ্গে পাহাড়িদের ঐতিহ্যবাহী কাপড়ে তৈরি বিশেষ পোশাক। ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকের তালে তালে এমন পোশাক পড়ে র‌্যাম্পে হেঁটেছেন মডেলরা।
ইভেন্টস ৭১ আয়োজিত চারদিনব্যাপী ফ্যাশন কার্নিভাল ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে গতকাল মঙ্গলবার এমন বর্ণিল ফ্যাশন শো’র আয়োজন করা হয়। গত শনিবার (৭ জানুয়রি) খুলশী টাউন সেন্টার কনকর্ডে শুরু হয় এই আয়োজন।
অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে জমকালো ফ্যাশন শো’র পাশাপাশি ছিল সাংষ্কৃতিক আয়োজন ও পুরস্কার প্রদান পর্ব। সমাপনী দিনে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দৈনিক পূর্বকোণের পরিচালনা সম্পাদক জসীম উদ্দীন চৌধুরী। তাঁকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেন আয়োজক কমিটির সদস্যরা। এর আগে বিকেল চারটায় অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কবি, আর্টিস্ট ও চট্টগ্রামের ফ্যাশন এডভাইজার খালিদ আহসান, বিশেষ অতিথি ছিলেন সিবিআইএফটি এর সিইও সায়েদুল ইসলাম, পোর্ট সিটি ইউনিভার্সিটির ডিন মোফাজ্জেল আহমেদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে প্রধান অতিথি দৈনিক পূর্বকোণের পরিচালনা সম্পাদক জসীম উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘নগরীর একটি অত্যাধুনিক শপিং মলে এমন একটি বর্নিল ফ্যাশন শো’র আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়। বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাক গুলোর পাশাপাশি সরাসরি ডিজাইনারদের কথা শুনতে পাওয়া দারুণ ব্যাপার। এর মাধ্যমে ভবিষ্যতে যারা ফ্যাশন ডিজাইনিং এ আসতে চায় তারাও অনুপ্রাণিত হবে।’
ইভেন্টস ৭১ এর ডাইরেক্টর মো. আরিয়ান মোহাম্মদ রানা জানান, প্রতিদিন ছয়টি বিষয় নিয়ে ফ্যাশন কার্নিভাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিষয়গুলি হলো চিটাগং কালচার, মায়াং, রাজস্থান, সাদা-কালো, ফ্যামিলি এন্ড কিডস ওয়ের্স্টান এন্ড ওয়েডিং। এছাড়া আগামী ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত নারী উদ্যোক্তাদের জন্য রয়েছে বিশেষ মেলা। নারী উদ্যোক্তারা তাদের নানা পণ্য নিয়ে এই মেলায় অংশগ্রহণ করেছেন।
মডেলদের প্রদর্শিত পোশাকগুলোর ডিজাইন করেন নতুন ডিজাইনারদের মধ্যে ফ্যাশন কার্নিভালে অংশগ্রহণ করে পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও সিবিআইএফটি’র ১৩১, ১৫১ ও ১৩২ ব্যাচের নবীন ডিজাইনাররা। সিনিয়র ডিজাইনারদের পক্ষ থেকে এই কার্নিভালে অংশগ্রহণ করেন আইভি হাসান (ডলস হাউস), সুলতানা রোজী (মিয়া বিবি), মেঘলা (মেঘ রোদ্দুর), আমেনা ইসলাম (মেন্ডোলিন), ইলিয়াছ (শৈল্পিক) সহ সাতজন ডিজাইনার।
এর মধ্যে চ্যাম্পিয়ন হয় সিবিআইএফটির ১৩১তম ব্যাচ, প্রথম রানার্স আপ পোর্ট সিটি, দ্বিতীয় রানার্স আপ সিবিআইএফটির ১৫১তম ব্যাচ এবং বেস্ট স্টলের পুরস্কার জিতে নেয় সিবিআইএফটির ১৩২ তম ব্যাচ। প্রধান অতিথি দৈনিক পূর্বকোণের প্রকাশক ও পরিচালনা সম্পাদক জসীম উদ্দীন চৌধুরী বিজয়ী দলগুলোর মধ্যে পুরস্কার তুলে দেন।