নীড়পাতা » প্রথম পাতা » বাবুল আক্তারের খালাতো ভাইকে জিজ্ঞাসাবাদ

নগরীতে মাহমুদা খানম মিতু হত্যা

বাবুল আক্তারের খালাতো ভাইকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় বাবুল আক্তারের আরেক খালাতো ভাই সফিউদ্দিনকে (৪০) কে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে তদন্তকারী কর্মকর্তা। সফি নগরীর সিইপিজেডে একটি পোশাক করাখানায় কাজ করেন। গতকাল (মঙ্গলবার) বিকেল পাঁচটায় তদন্তকারী কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) মো. কামরুজ্জামানের কার্যালয়ে আসেন সফি। প্রায় দেড়ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর সন্ধ্যা ছয়টায় তিনি সিএমপি ত্যাগ করেন।

এডিসি কামরুজ্জামান বলেন, আত্মীয় হিসেবে সফিউদ্দিন নিয়মিত বাদির (বাবুল আক্তার) বাসায় যেতেন। হত্যাকা-ের ১৫দিন আগে তিনি সর্বশেষ গিয়েছিলেন।
তাকে আমরা বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। গত ৮ জানুয়ারি বাবুল আক্তারের আরেক খালাত ভাই মফিজকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্তহকারী কর্মকর্তা। এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর বাবুল আক্তার, ২২ডিসেম্বর শ্বশুর মোশাররফ হোসেন এবং ১ জানুয়ারি বাবুল আক্তারের মা-বাবাকে নিজ কার্যালয়ে ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।
গত বছরের ৫ জুন ভোরে নগরীর ও আর নিজাম রোডে সন্তানের সামনে সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে মিতুকে। এই ঘটনায় স্বামী তৎকালীন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার বাদি হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। হত্যাকা-ের পর গত ২৪ জুন রাতে বাবুল আক্তারকে রাজধানীতে তার শ্বশুরের বাসা থেকে তুলে নিয়ে টানা ১৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। মামলার বাদিকে আসামির মতো তুলে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করায় হত্যাকা-ের কারণ নিয়ে দেশজুড়ে কৌতুহল সৃষ্টি হয়। এরপর বিভিন্ন গণমাধ্যমে হত্যাকা-ের জন্য বাবুল আক্তারকে ইঙ্গিত করে খবর প্রকাশ হয়। মিতু হত্যা মামলায় এই পর্যন্ত সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। একই মামলার দু’জন আসামি পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে। দু’জন আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে বলেছেন, মুছার নির্দেশে এবং তদারকিতে এই হত্যাকা- সংঘটিত হয়েছে।
সিএমপি’র গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হিসেবে দায়িত্বরত অবস্থায় পদোন্নতি পেয়ে পুলিশ সুপার হয়েছিলেন বাবুল আক্তার। হত্যাকা-ের আগের দিন তিনি পুলিশ সদর দপ্তরে পুলিশ সুপার পদে যোগ দিতে ঢাকায় গিয়েছিলেন। স্ত্রী হত্যার পর বাবুল আক্তার ঘটনা পরিক্রমায় চাকুরি থেকে অব্যাহতি নেন।